শনিবার সকালেই অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা হবে জানার পরেই হোয়াটসঅ্যাপ জুড়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে।  স্থানীয় প্রশাসনের তরফে বিভিন্ন হোয়াটস অ্যাপের বিভিন্ন গ্রুপে মেসেজ পাঠানো হয়। সেখানে গ্রুপের সেটিং চেঞ্জের জন্য আবেদন করা হয়। বলা হয়, অ্যাডমিন ছাড়া যেন গ্রুপে কেউ যেন মেসেজ পাঠাতে না পারেন। উসকানি মূলক যেন কোনও মেসেজ গ্রুপে পোস্ট করা হয়। পরবর্তী কয়েকদিন যেন উসকানি মূলক মেসেজ থেকে দূরে থাকেন সকলে। 

শুক্রবার রাতেই জানানো হয়, শনিবার সকালে অযোধ্যার বিতর্কিত জমি মামলার রায় দান হবে। এরপররেই দেশকে নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে দেওয়া হয়। হায়দরাবাদ সহ তেলেঙ্গেনার বিভিন্ন অঞ্চলে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। হায়দরাবাদের স্পর্শকাতর অঞ্চলে ব্যাপক পরিমাণে  নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হয়েছে। পুরনো শহর হায়দরাবাদে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে স্থানীয় প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে।  শুক্রবার রাতেই হায়দরা বাদের পুলিশ কমিশনার অঞ্জনি কুমার অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে স্থানীয়দের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বৈঠক করেন। 

উত্তরপ্রদেশ , জম্মু ও কাশ্মীর  এবং গোয়া জুড়ে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এছাড়া মধ্যপ্রদেশর ভোপাল, কর্ণাটকের বেঙ্গালুরু ও রাজস্থানের জয়পুরে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এর ফলে ১৪৪ ধারা জারি করা এলাকায় চার জনের বেশি ব্যক্তি কোনও জমায়েত করতে পারবেন না। শনিবার নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, জম্মু ও কাশ্মীর, কর্ণাটক ও দিল্লির স্কুল, কলেজ ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উত্তরপ্রদেশ সরকার সোমবার পর্যন্ত বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।