শাহিনবাগের সিএএ-এনআরসি বিরোধী আন্দোলন নিয়ে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন ভারতীয় জাতীয় দলের জোরে বোলার মহম্মদ শামির স্ত্রী হাসিন জাহান। তাঁর দাবি শাহিনবাগে মহিলাদের ব্যবহার করেছিলেন মুসলিম মৌলবাদীরা। তাঁর মতে মহিলাদের পরিবর্তে যদি ওই মৌলবাদী পুরুষরা শাহিনবাগে  ধরণায় বসতেন, তাহলে অনেক আগেই দিল্লি পুলিশ তাদের তুলে দিত।  

সম্প্রতি এক বেসরকারি চেলিভিশন চ্যানেলে অনুষ্ঠিত এক বিতর্কসভায় অংশ নিয়ে হাসিন জাহান বলেছেন, একজন মুসলিম মহিলা হিসাবে তিনি জানেন অনেক মুসলিম পরিবারেই মেয়েদের পড়াশোনার চল থাকলেও সেই সংখ্যাটা বেশ কম। মহিলারা যদি ঘর থেকে বেরিয়ে কাজ করতে চায়, এগিয়ে যেতে চায়, বোরখার বন্ধ থেকে মুক্ত হতে চায়, তাহলেই রক্ষণশীল মুসলিম সমাজ তাকে পিছু টেনে ধরে। বলে ঘরে থাকার কথা। তাহলে কেন শাহিনবাগে তাদের প্রকাশ্য়ে ধরনায় বসতে দেওয়া হল?

মহম্মদ শামির স্ত্রী-এর মতে মুসলিম মৌলবাদীরা বুঝেছিলেন, শাহিনবাগের আন্দোলনের মতো একটি ধরনায় যদি পুরুষরা বসেন, তাহলে পুলিশ তাদের তুলে নেবে। নিজেদের রক্ষার করার জন্যই মহিলাদের সেখানে ব্যবহার করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। নইলে, কেউ বোরখা না পরলেই তার চরিত্র নিয়ে প্রশ্ন তোলে ওই মৌলবাদীরা।

নিজের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, অধিকারের জন্য লড়াই করার কারণেই তাঁকে খারাপ মহিলা বলে দাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। কাজেই এনআরসি এবং সিএএ আন্দোলনের সময় মুসলিম মহিলাদের আগে এগিয়ে দেওয়াটা শুধুমাত্র মৌলবাদীদের নিজেদের সুরক্ষা এবং রাজনৈতিক লাভের জন্য মহিলাদের ব্যবহার করেছেন। তিনি আরও বলেন, বাংলা বলেই তিনি অনেক নিরাপদে রয়েছেন, উত্তরপ্রদেশে থাকলে তাঁকে উদ্বেগে থাকতে হত।