ব্য়াকফুট থেকে একেবারে ফ্রন্টফুটে। পাক ক্রিকেটার  শোয়েব আখতারের মন্তব্য়ের  জেরে অক্সিজেন পেলেন মোদী-অমিত শাহরা। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে 
বিরোধীদের কোণঠাসা করতে এবার শোয়েবের সাক্ষাৎকারকে হাতিয়ার করছে বিজেপি। সোশ্য়াল মিডিয়ায় বিজেপির পেজগুলিতে ছেয়ে গেছে শোয়েব আখতার ও দানেশ কানেরিয়ার বক্তব্য়।

 

Shame on #Pakistan cricket team for discriminating with its non-Muslim players. "Pakistan players refused to eat food with #DanishKaneria & never gave him credit just because he belongs to the #Hindu religion." #ShoaibAkhtar @TarekFatah @VeengasJ @francescam63 pic.twitter.com/R5lLvkySI3

— Andrea Rose (@Andyrockz2012) December 27, 2019 

 

এতদিন বলছিলেন দেশের নেতারা। এবার শত্র্ু দেশ থেকেও এল একই বার্তা। পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার স্বীকার করলেন,দলে হিন্দু ক্রিকেটারদের সঙ্গে বাজে ব্য়বহার করা হত। কেবল হিন্দু বলেই দানেশ কানেরিয়ার সঙ্গে একই টেবিলে খেতেন না পাক ক্রিকেটাররা। শোয়েবের এই বিস্ফোরক সাক্ষাৎকার একেবারে সংবাদের  শিরোনামে নিয়ে এসেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে।

 কারণ প্রথম থেকেই পাকিস্তানে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার হিন্দুদের নাগরিকত্ব দেওয়ার  কথা বলা হয়েছে এই আইনে। সিএবি বিল থাকাকালীনও বিরোধীদের সংসদে একই কথা বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। কেন মুসলিমদের এই বিলে নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়নি তারও যুক্তি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেছেন,যেহেতু পাকিস্তান মুসলিম রাষ্ট্র, তাই সেখানে মুসলিম নিপীড়নের প্রশ্নই ওঠে না। ওখানে হিন্দুরা সংখ্যালঘু। তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই তাদের ওপর অত্যাচারের খাঁড়া নেমে এসেছে। ভারত সেই সব ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈনদের জন্য়ই সিএএ বানিয়েছে।

Pak cricketer Danish Kaneria to ANI on Shoaib Akhtar's allegations that Pak players had problems eating with Kaneria as he's a Hindu:He told the truth. I'll reveal names of players who didn't like to talk to me as I was a Hindu. Didn't have courage to speak on it, but now I will. pic.twitter.com/HmeSUhtbUk

— ANI (@ANI) December 26, 2019 

খোদ পাক ক্রিকেটারের মুখে হিন্দুদের নিপীড়নের কথা উঠে আসায় এবার বিরোধীদের পাল্টা আক্রমণে সুবিধা হবে মোদী ব্রিগেডের। সহজেই তাঁরা বলতে পারবেন, জাতীয় ক্রিকেট দলে হিন্দু বলে বৈষম্য়ের শিকার হয়েছেন দানেশ। একজন স্বনামধন্য ক্রিকেটারের যদি এই হাল হয়, তাহলে ভাবুন সাধারণ হিন্দুরা পাকিস্তানে কী অবস্থায় আছেন। এই নিপীড়িত হিন্দুদের জন্যই সিএএ করেছে মোদী সরকার। আর বিরোধীরা তাতে বাধা দিচ্ছে।

সম্প্রতি, পাক দলে হিন্দু বলে হেনস্থার শিকার হতে হচ্ছে পাক ক্রিকেটার দানেশ কানেরিয়াকে। দলে সতীর্থরা তার সঙ্গে খাবার খান না। এক সাক্ষাৎকারে এমনই বিস্ফোরক দাবি করেছেন প্রাক্তন পাক ক্রিকেটার শোয়েব আখতার। শোয়েব বলেন, দেশের জন্য ভালো ক্রিকেট খেললেও তার যোগ্য় সম্মান দেওয়া হয়নি দানেশকে। রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রসের এই মন্তব্য় প্রকাশ্য়ে আসতেই তোলপাড় শুরু হয়েছে দুই দেশের রাজনীতিতে। সংবাদ সংস্থা এনএনআই-কে কানেরিয়া জানিয়েছেন। শোয়েবের বক্তব্য একেবারে ঠিক। তিনি হিন্দু হওয়ার জন্য় কোন কোন ক্রিকেটাররা তাঁর সঙ্গে খেতেন না তাদের নাম শীঘ্রই প্রকাশ করবেন  তিনি। কানেরিয়া জানিয়েছেন, অতীতে এই নিয়ে মুখ খোলার মত সাহস ছিল না তাঁর। কিন্তু এবার আর মুখ বুঁজে থাকবেন না তিনি।