গুজরাতের জাখাউ বন্দর থেকে প্রায় ২১৮ কেজি ওজনের নিষিদ্ধ মাদক-সহ গ্রেফতার করা হল ৬ পাকস্তানিকে। গোপন সূত্র থেকে দ্য ডিরেক্টরেট অব রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স-এর গোয়েন্দারা আগেই জানতে পেরেছিলেন যে, পাকিস্তানের বোট ‘আলি-মদিনা’ নিষিদ্ধ মাদক নিয়ে প্রবেশ করতে পারে ভারতে। আর সেইমতো কড়া পাহাড়া নিয়ে তদন্তে নামেন গোয়েন্দা দফতরের কর্মীরা। আর তাতেই লক্ষ্যভেদ করেন গোয়েন্দারা। গোয়েন্দার হাতে ধরা পড়ে ৬ পাকস্তানি। 

সূত্রের খবর, গত ২২ মে গুজরাতের কচ্ছ উপকূলের জাখাউ বন্দরের আশেপাশে ঘুরতে দেখা যায় পাকিস্তানের বোট ‘আল-মদিনা’কে। ঠির তখনই সন্দেহ দানে বাধে গোয়েন্দাদের মনে। তখনই ‘আল-মদিনা’য় থাকা ৬ সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দারা। আরও জানা যায় যে, উদ্ধার হওয়া ওই বোট থেকে পাওয়া গিয়েছে ১৯৪ প্যাকেট নিষিদ্ধ মাদক, যার ওজন আনুমানিক ২১৮ কেজি। গোয়েন্দাদের দাবি, উদ্ধার হওয়া ওই মাদক খুব সম্ভবত ব্রাউন হেরোইন। গ্রেফতার হওয়া ৬ জনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। 
 
ভারতের উপকূল রক্ষী বাহিনীর সূত্রে খবর, ‘আল-মদিনা’য় করে প্রায় ৩৩০ কেজি নিষিদ্ধ মাদক নিয়ে ভারতের উদ্দেশে পাড়ি দিয়েছিল অভিযুক্ত ওই ৬ পাকিস্তানি নাগরিক। কিন্তু গোয়ান্দাদের উপস্থিতি টের পেতেই মাদকের প্যাকেট সমুদ্রে ফেলে দেয় তারা। বাকি ২১৮ কেজি মাদক উদ্ধার করতে সক্ষম হন গোয়েন্দারা। আগামী ২৭ মে পর্যন্ত গোয়েন্দাদের হেফাজতেই থাকবে ওই ৬ পাকিস্তানি। তারপর ভূজ আদালতে পেশ করা হবে তাদের।