শনিবার  শিবসেনার সঙ্গে সাংবাদিক বৈঠক করার সময় এনসিপির প্রধান শরদ পাওয়ার  ভাইপো অজিত পাওয়ার বিরুদ্ধে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দেন। শনিবার সন্ধের সময়  এনসিপির বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে এনসিপি থেকে  অজিত পাওয়ারকে বহিষ্কৃত করে দেওয়ার একটা সম্ভাবনা রয়েছে বলে সূত্রের খবর। 

 

শনিবার সকালে এনসিপির কয়েকজন বিধায়ককে নিয়ে রাজভবনে যান অজিত পাওয়ার। সেখানে  তিনি বিজেপি সমর্থন করেন।  মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেবেন্দ্র ফড়নবী শপথ গ্রহণ করেন। উপ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন  অজিত পাওয়ার। এরপরেই শরদ পাওয়ার জানান, অজিত পাওয়ারের এটা নিজের সিদ্ধান্ত। এর সঙ্গে দলের কোনও যোগ নেই।  অজিত পাওয়ারের মেয়ে  সুপ্রিয়া সোলে জানিয়েছেন,  অজিত পাওয়ার  একটা বড় বিশ্বাস ভাঙলেন। বিজেপির সঙ্গে যুক্ত হয়ে তিনি পরিবার থেকে বিচ্ছন্ন হলেন। 

উদ্ধব ঠাকরের সঙ্গে সাংবাদিক বৈঠক করার সময় এনসিপির প্রধান শরদ পাওয়ার জানিয়েছেন, সরকার গঠনের জন্য জোটের কাছে  ১৭০ জন বিধায়কের সমর্থন ছিল। কিন্তু আমাদের পাশ কাটিয়ে এনসিপির বেশ কয়েকজন বিধায়ক বিজেপিকে সমর্থন করেছেন। ওই সাংসদরা কখনই  এসসিপিকে  চিত্রিত করে না। অজিত পাওয়ার সম্পূর্ণ দলের বিরুদ্ধে গিয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে তিনি মন্তব্য করেছেন।  এনসিপির ১০ থেকে ১১ জন বিধায়ক বিজেপিকে সমর্থন করেছে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু সকলের সঙ্গেই আমাদের যোগাযোগ ছিল।  জানা গিয়েছে, সন্ধের সময় এনসিপির দলের অভ্যন্তরে একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে  শরদ পাওয়ার  বিশ্বাসঘাতকতা করার জন্য তাঁর ভাইপো অজিত পাওয়ারকে বহিষ্কৃত করতে পারেন।