অযোধ্যার রামমন্দিরের জন্য পাথর আনা হবে সুদূর সীতা এলিয়া থেকে। সীতা এলিয়া শ্রীলঙ্কায়। পৌরানিক আখ্যান অনুযায়ী রাবন রাজা সীতাকে হরণ করে লঙ্কা নিয়ে গিয়েছিল। সেখানে অশোক বনে তাঁকে বন্দি করে রেখেছিলেন। সেই এলাকাটি বর্তমানে সীতা এলিয়া নামে পরিচিত। কথিত আছে বন্দিদশায় দেবী সীতে সেখানে বসে বসেই শ্রীরামচন্দ্রের ধ্যান করতেন। তাঁকে উদ্ধার করার কথা বলতেন।  সীতার বন্দি স্থল থেকেই পাথর নিয়ে আসা হচ্ছে অযোধ্যার রাম মন্দিরের জন্য।  সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে একথা জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কায় দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত। 

তিনি বলেন অযোধ্যার রাম মন্দিরের জন্য শ্রীলঙ্কার সীতা এলিয়া থেকে একটি পথর আনা হবে ভারতে। যেটি ভারত ও শ্রীলঙ্কা দুই দেশেরই শক্তি ও মৈত্রীর প্রতীক হবে। হাইকমিশনারের উপস্থিতিতে এই পাথরটি শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রদূত মিলিন্দা মোরাগোদা মন্দির ট্রাস্টকে উপহার হিসেবে তুলে দেবেন। শ্রীলঙ্কার সেন্ট্রাল প্রভিন্সে অবস্থিত সীতা এলিয়া। সেখানে একটি মন্দিরও রয়েছে। মনে করা হয় ভগবান সীতা প্রতিদিন প্রার্থনা করতেন। মূলত তিনি তাঁর স্বামী রামের নামই জপ করতেন। শ্রীলঙ্কাবাসীদের সঙ্গে এই স্থানটি ভারতীয়দের কাছেও অত্যান্ত প্রবিত্র। সেখান থেকে পাথর আসায় দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও দ়ৃঢ় হবে বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। 

এদিকে শ্রীরামচন্দ্র জন্মভূমি ট্রাস্টের জেনারেল সেক্রেটারি চম্পত রাই জানিয়েছেন আগামী ৩ বছরের মধ্যেই রাম মন্দির তৈরি হয়ে যাবে। মন্দির নির্মানের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুত গতিতে। তবে মন্দিরের সামনের জমি কী তৈরি হবে তা নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়নি।