করোনাভাইরাস মহামারির পর নতুন করে মাথা তুলে দাঁড়াবে বিশ্ব। আর সেই নতুন বিশ্বের পুনর্জাগরণের কাহিনিতে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে ভারত। এটাই তাঁর বিশ্বাস এমনটাই জানালেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। ইন্ডিয়া ইনকর্প আয়োজিত ইন্ডিয়া গ্লোবাল উইক-এর উদ্বোধন করে মোদী জানান, বিশ্বজুড়ে ভারতীয় প্রতিভা কীভাবে অবদান রাখছে, তা তিনি দেখেছেন বলেই এই বিশ্বাস তাঁর এসেছে। ভারত-কে প্রতিভার একটি শক্তিকেন্দ্র বলে উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি আরও জানান, ভারতীয় প্রযুক্তি শিল্প এবং প্রযুক্তি পেশাদাররা কয়েক দশক ধরে বিশ্বকে পথ দেখিয়ে চলেছে। প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ভারত একটি প্রতিভার শক্তিকেন্দ্র। আর তারা সবসময়ই বিশ্বের উন্নয়নে অবদান রাখতে আগ্রহী। তিনি আরও বলেন, যে কোনও অসম্ভবকে অর্জন করার মনোবল রয়েছে ভারতীয়দের। তাই অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের ক্ষেত্রে ভারত যে ইতিমধ্যেই ইঙ্গিত দেখা যাচ্ছে, তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের বিভিন্ন সংস্থাগুলিকেও ভারতে লগ্নির আহ্বান জানান। তিনি বলেন ভারত বরাবরই বিশ্বের অন্যতম উন্মুক্ত অর্থনীতির দেশ। বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে সংস্থারা ভারতে এসে ব্যবসা করুক। তাদের জন্য ভারত লাল কার্পেট পেতে দিচ্ছে বলেও জানান তিনি। তিনি আরও দাবি করেন, ভারত বিদেশি সংস্থাগুলিকে যে ধরণের সুযোগসুবিধা দিচ্ছে তা খুব কম দেশই দিয়ে থাকে।

সম্প্রতি, হায়দরাবাদের ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থা ভারত বায়োটেক সংস্থা করোনাভাইরাসের টিকা তৈরির মানব দেহে পরীক্ষার স্তরে পৌঁছে গিয়েছে। যা  নিয়ে সারা দেশে উৎসাহ দেখা গিয়েছে। আইসিএমআর ১৫ অগাস্ট এই টিকা বাজারে আসবে বলে জানিয়েছে। এদিন ভারতীয় ফার্মা সেক্টরগুলিরও ভুয়সী প্রশংসা করেন মোদী। তিনি বলেন, বিশ্বের দুই-তৃতীয়াংশ টিকা তৈরি হয় ভারতেই। আগামী দিনেও একইভাবে বিশ্বব্যাপী ভারতীয় ফার্মাসিউটিকাল সংস্থাগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।