ট্যুইট বিতর্কে এবার আইনি নোটিস পাঠান হল বিখ্যাত আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণকে। বিচার ব্যবস্থার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ আনার ঘটনায় তাঁর বিরুদ্ধে কেন পদক্ষেপ নেওয়া হবে না তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে শীর্ষ আদালত। 

২টি ট্যুইট করার কারণে প্রাক্তন আপ নেতার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয়েছিল। এরমধ্যে একটি ট্যুইটে বিগত ৬ বছরে ভারতের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার জন্য প্রাক্তন ৪ প্রধান বিচারপতিকে দায়ী করা হয়েছিল। আরেকটি ট্যুইটে সুপ্রিম কোর্টের বর্তমান প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদের সমালোচনা করা হয়।

আরও পড়ুন: পেটে গেলেই মরবে করোনা, শিশুদের চোলাই খাওয়ানো হল ওড়িশার গ্রামে, দেখুন সেই ভিডিও

 গতমাসেই প্রশান্ত ভূষণ ট্যুইটে লিখেছিলেন, ভবিষ্যতে ইতিহাসবিদরা যখন বর্তমানের ৬বছরের দিকে ফিরে তাকাবেন, তখন দেখতে পাবেন যে ঘোষিত জরুরি অবস্থা না হলেও কীভাবে দেশের গণতন্ত্র ধ্বংস করা হয়েছে। সুপ্রিমকোর্টের ভূমিকা ও ৪ জন প্রধান বিচারপতির ভূমিকাও তাঁরা বিশেষভাবে চিহ্নিত করতে পারবেন বলে লিখেছিলেন প্রশান্ত। প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদের হার্লে ডেভিডসন বাইকে চড়ার ছবি নিয়ে প্রশান্ত ভূষণ বলেছিলেন, এমন একটা সংকটের সময় প্রধান বিচারপতি মাস্ক ও হেলমেট না পরে বাইকে চড়ছেন। অন্যদিকে লকডাউনে নাগরিকরা বিচার পাচ্ছেন না। 

আরও পড়ুন:রাজস্থানে আরও জমল নাটক, মুখ্যমন্ত্রীত্ব থেকে সরাতে এবার গেহলটের ভাইয়ের বাড়ি ইডির হানা

বিচারপতি অরুন মিশ্র, বিচারপতি বিআর গবাই ও বিচারপতি কৃষ্ণা মুরারির ডিভিশন বেঞ্চে মামলার শুনানি চলছে। করোনা মহামারী পরিস্থিতিতে ভিডিও কমফারেন্সের মাধ্যমে মামলার সওয়াল-জবাব হচ্ছে।  পাশাপাশি, ট্যুইটার ইন্ডিয়া প্রশান্ত ভূষণের ট্যুইটগুলো কেন সরায়নি তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে আদালত। এই মামলায় আগামী ৫ আগস্ট পরবর্তী শুনানি হতে চলেছে।