তিরুমালা মন্দির কর্তপ কি আগে থেকেই আঁচ করতে পেরেছিল ভরাডুবি হতে পারে ইয়েস ব্যাঙ্কের। কারণ ইয়েস ব্যাঙ্কের ভরাডুবির কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে সামনে এক সূত্র। যে সূত্রটি দাবি করছে সদ্যই তিরুমালা তিরুপতি দেবাস্থানাম মন্দির কর্তৃপক্ষ ইয়েস ব্যাঙ্কে গচ্ছিত প্রায় ১৩০০ কোটি টাকা তুলে নিয়েছে। এই টাকা অন্যত্র লগ্নি করা হয়েছে বলেও সূত্রের খবর। ভারতের ধনী মন্দির গুলির একটি তিরুমালার তিরুপতির মন্দির। বিশ্বেই ধনী মন্দিরের তালিকায় রয়েছে এই মন্দিরের নাম। যেখানে নিত্যদিনই ভক্তরা লক্ষ লক্ষা টাকা দান করেন দেবতার উদ্দেশ্য। শুধু টাকা নয়। দান করা হয় সোনাদানাসহ বহু মূল্যের রত্নাদিও। 

তিরুমালা মন্দির কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে যেসব ব্যাঙ্কের মন্দিরের সম্পত্তি রাখা হয় তাদের রিপোর্ট পর্যালোচানা করা হয়েছিল। সেই সময়ই ইয়েস ব্যাঙ্কের ভরাডুবি হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হয়েছিল। তাই ইয়েস ব্যাঙ্কে গচ্ছিত টাকা আগেভাগেই তুলে নিয়ে অন্যত্র লগ্নি করা হয়েছে। তবে মন্দির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে আগেই বিষয়টি জানান হয়েছে অন্ধ্র প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ওয়াই এস জগন মোহন রেড্ডিকে। এদিন ইয়েস ব্যাঙ্কের ঘটনা সামনে আসতেই অন্ধ্র প্রদেশ সরকারের এক পরামর্শদাতা মন্দির কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্য ট্যুইট করেন। সেই ট্যুইটে মন্দির কর্তৃপক্ষকে দূরদর্শী বলে ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। 

অন্যদিকে ইয়েস ব্যাঙ্ক সম্বন্ধে কিছুই জানতে না বলে জানিয়েছেন সংস্থার প্রাক্তন কর্ণধার ও প্রতিষ্ঠাতা রানা কাপুর। তিনি বলেন গত ১৩ মাস ইয়েস ব্যাঙ্কের সঙ্গে তাঁর কোনও যোগাযোগ নেই। তাই ব্যাঙ্কের বর্তমান পরিস্থিতি সম্বন্ধে তিনি অবগত নন বলেও জানিয়েছেন। অথচ একটা সময় তিনিই ছিলেন বেসরকারি এই ব্যাঙ্কের চালিকাশক্তি। তাঁর সময় এই ব্যাঙ্কের সম্পত্তির পরিমান ছিল ৩.৪ লক্ষ কোটি টাকা। কিন্তু অত্যাধিক ঋণ দেওয়া পাশাপাশি পুঁজির সন্ধান করতে না পারাই ব্যাঙ্কের ভরাডুবির কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।  

তবে ইয়েস ব্যাঙ্ককে সাহায্য করতে ইতিমধ্যেই পথে নেমেছে সরকার। পাশে দাঁড়িয়েছে আরবিআই। আগামী তেশরা এপ্রিল পর্যন্ত ৫০ হাজারের বেশি টাকা তোলা যাবে না বলে নির্দেশ জারি করা হয়েছে। এই সময় ব্যাঙ্ক কোনও ঋণও দিতে পারবে। তবে গ্রাহকদের টাকা সম্পূর্ণ সুরক্ষিত রয়েছে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। তিনি আরও জানিয়েছেন বেতন পাবেন ইয়েস ব্যাঙ্কের কর্মীরা। এই বেসরকারি ব্যাঙ্কটি অবিলম্ব সংকট কাটিয়ে উঠবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।