মধ্যপ্রদেশ বিধানসভায় কর্নাটকের উল্টো ছবি দেখা গেল। মঙ্গলবারই আস্থাভোটে কর্নাটকে ক্ষমতা হারিয়েছে কংগ্রেস-জেডিএস সরকার। শাসক জোটের ২০ জন বিধায়ক ভোটদানে বিরত ছিলেন। তারপর মধ্যপ্রদেশেও একই ঘটনা ঘটতে পারে বলে আভাস দিয়েছিলেন বিজেপি নেতা শিবরাজ চৌহান। কিন্তু বুধবার সম্পূর্ণ ভিন্ন চিত্র দেখা গেল।

এদিন, ক্রিমিনাল ল' সংশোধনী বিল ২০১৯ নিয়ে ভোটাভুটিতে বরং দুই বিজেপি বিধায়ক কংগ্রেসের আনা বিলকে সমর্থন করলেন। বিজেপি বিধায়ক নায়ায়ণ ত্রিপাঠী ও শরদ কোল এদিন কংগ্রেসের পক্ষে ভোট দিয়ে জানালেন নিজেগদের এলাকার উন্নয়নের জন্য তাঁরা কমলনাথ সরকারকেই সমর্থন করেন।

দুজনেই অবশ্য আগে কংগ্রেস দলেই ছিলেন। পরে বিজেপিতে যোগ দেন। ২৩০ সদস্যের কক্ষে ১২১টি আসন রয়েছে কংগ্রেসের দখলে। তার মধ্যে স্পিকার এন পি প্রজাপতি ভোটদানে বিরত ছিলেন। তা সত্ত্বেও দুই বিজেপি বিধায়কের ভোটে এদিন কংগ্রেসের সংশোধনীর পক্ষে ১২২টি ভোট পড়ল।