ন'বছরের এক ছাত্রকে শাস্তি দিতে এক অভিনব উপায় বের করল একটি স্কুল। ছাত্রকে শাস্তি দিতে তার ট্রান্সফার সার্টিফিকেটে ন'বছরের বালককে 'চরিত্রহীন' বলে ব্যাখ্যা করল স্কুল। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশে। উত্তরপ্রদেশের গোন্ডা জেলার একটি স্কুলে ঘটেছে এমনই আশ্চর্যজনক একটি ঘটনা। মাত্র ন'বছরের ওই ছাত্রের অপরাধ ছিল যে, স্কুলের একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিল তার বাবা-মা। আর তারই প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য স্কুল কর্তৃকক্ষ এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন বলে মন করা হচ্ছে। সে যাতে অন্য কোনও স্কুলে ভর্তি না হতে পারে সেই জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও মনে করছেন অনেকে। 

সূত্রের খবর, গত মাসের গোড়ার দিকে, ক্লাস ফাইভের ওই ছাত্র তার ক্লাসের কিছু সহপাঠীর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়ে। আর সেই কারণে স্কুলের এক শিক্ষক তাকে বেধড়ক মারধর করেন বলে খবর। সেই কারণে ওই ছাত্রের বাবা-মা স্কুলে এসে ওই প্রিন্সিপালের কাছে শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানান। প্রিন্সিপাল এই বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। 

সেইকারণেই ছেলেকে স্কুল থেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন ওই দম্পতি। এরপর প্রিন্সিপালের কাছে একটি ট্রান্সফার সার্টিফিকেট দাবী করার পর তা হাতে পাওয়ায় কার্যত হতবাক হয়ে যান ওই দম্পতি। ট্রান্সফার সার্টিফিকেট তাঁদের ন'বছরের ছেলেকে চরিত্রহীন বলে ক্যাখ্যা করে স্কুল। এরপরে স্কুল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে কার্যত অসন্তোষ প্রকাশ করেন তার বাবা-মা। এই সামান্য কারণে কীকরে স্কুল কর্তৃপক্ষ ছোট্ট শিশুর ভবিষ্যত নিয়ে খেলতে পারে ,তা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।