নম্বরটা উত্তরপ্রদেশ পুলিশের  হেল্পলাইনের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর। শুক্রবার সেখানেই এল হুমকি-বার্তা, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের বাসভবন-সহ রাজ্যের অন্যান্য ৫০ টি গুরুত্বপূর্ণস্থান বিস্ফোরণে উড়িয়ে দেওয়া হবে। তারপরই রীতিমতো যুদ্ধকালীন তৎপড়তা দেখা গেল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ বিভাগে।

সন্ধের মধ্য়েই লখনউ-এর কালিদাস মার্গের মুখ্যমন্ত্রীর সরকারী বাসভবন এবং তার আশেপাশের এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উত্তরপ্রদেশ পুলিশ কর্মকর্তারা। তাঁদের দাবি শুধু মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন এলাকাতেই নয়, নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে প্রাপ্ত বার্তাটিতে উল্লেখ করা রাজ্যের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ এলাকাগুলিতেও।

প্রসঙ্গত কালিদাস মার্গে মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবন-সহ উত্তরপ্রদেশের আরও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীর সরকারী বাসস্থান রয়েছে। বেশ কয়েকজনমন্ত্রী সেখানে থাকেনও । সূত্রের খবর ওই এলাকায় পুলিশ সেখানে কড়া চেকিং শুরু করেছে। এমনকী স্নিফার ডগ-ও মোতায়েন করা হয়েছে। প্রতিটি গাড়ি তারা শুঁকে বিস্ফোরক নেই বলে জানালে তবেই সেই গাড়ি ওই রাস্তায় যেতে দেওয়া হচ্ছে।
 
অন্যদিকে যে নম্বর থেকে বার্তাটি পাঠানো হয়েছিল, সেই নম্বরের সূত্র ধরে পুলিশ অপরাধীকে ধরার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।

তবে প্রাণহানির হুমকি পাওয়ার অভিঞতা উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষেত্রে এই প্রথম নয়। এর আগেও তাঁকে এরকমই হুমকি-বার্তা পাঠানো হয়েছিল। এরপর উত্তরপ্রদেশ পুলিশ তাদের সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্কের সাহায্যে কামরান নামে মুম্বইয়ের এক বাসিন্দাকে সনাক্ত করেছিল। পরে মহারাষ্ট্র পুলিশের সহায়তায় মুম্বই থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল অভিযুক্ত কামরাণকে।