প্রথম জঙ্গল সাফরিতেই এল গগণচুম্বি সাফল্য। আর তাতেই নেটদুনিটার রীতিমত হিরোর তকমা পেয়েছেন পুনের বাসিন্দা অভিষেক পাগনিস। মহারাষ্ট্রের টাডোবা অভয় অরণ্যে গিয়েছিলেন তিনি। আর সেখানে মাত্র দুঘণ্টার অপেক্ষার পর দেখতে পেয়েছিলেন ব্ল্যাক প্যান্থার। 

অভিষেক পাগনিসের কথায় তাঁর চিতাবাঘ দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন। কিন্তু তাঁদের সামনে এসেছিল একটি কালো চিতা। তাঁরকথায় সম্ভবত সেটি ছিল মহিলা। আর ব্ল্যাক প্যান্থার দেখার দেখা মাত্র বিলম্ব করেননি অভিষেক। একের পর এক ছবি তুলেছেন। ৫ জুন বিকেল পাঁচটা নাগার দুঘণ্টার অপেক্ষার পর চিতার দেখা পাওয়া গিয়েছিল। তারপরই তিনি ছবি তুলেছিলেন। তিনি বলেছেন ব্ল্যাক প্যান্থারটি আসার আগেই জঙ্গলের ওই এলাকায় আদালা পরিবেশ তৈরি হয়েছিল। বাকি পশুরা খুবই চিৎকার করছিল। তারপরই তাঁরা দেখতে পান ব্ল্যাক প্যান্থারটি একটি ঝোপের আড়াতে জল খাচ্ছিল। প্রায় ২০ মিনিট দর্শন দিয়েছে। আর ফোটেগ্রাফির জন্য অভিষেক ১৫ মিনিট সময় পেয়েছেন বলেও জানিয়েছেন। 

এর আগেও একটি  ব্ল্যাক প্যান্থারের ছবি ভাইরাল হয়েছিল। তবে সেটি ছিল চিরকালীন দাম্পত্যের ছবি। অভিষেকের কথায় তিনি আগে সেভাবে বন্যপ্রাণীর ছবি তোলেননি। নিজেকে এখনও প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার বলতে নারাজ অভিষেক। জানিয়েছেন তাঁর প্যাশান ফোটেগ্রাফি। তবে মাত্র ২০ ফুট দূর থেকেই তিনি ব্ল্যাক প্যান্থারটি দেখেছেন বলেও জানিয়েছেন।  তবে এটি নেটিজেনটা পছন্দ করায় তিনি খুশি হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।