জম্মুতে নাশকতার ছক বানচাল করল নিরাপত্তা রক্ষীরা। জম্মুর নাগরোটার বান টোপ প্লাজায় লুকিয়ে ছিল চার সন্ত্রাসবাদী। গোপনসূত্রে খবর পেয়ে হানা দেয় নিরাপত্তা রক্ষীর। তারপরই নিরাপত্তা রক্ষী ও চার সন্ত্রাসবাদীর মধ্যে শুরু হয় গুলির লড়াই। বৃহস্পতিবার ভোররাতে গুলির লড়াইয়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছে চার সন্ত্রাসবাদী। শ্রীনগর জম্মু জাতীয় সড়কটিতে গভীর রাত থেকেই যান চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিলেন নিরাপত্তা রক্ষীরা। স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে খবর বেশ কয়েক ঘণ্টা ধরেই চলে গুলির লড়াই। দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি আধিকারিকরা মনে করেন এই এলাকায় ৩-৪জন জঙ্গি লুকিয়ে রয়েছে। নিরপত্তার কারণে এনকাউন্টারের পরেও বন্ধ করে রাখা হয় জাতীয় সড়কের যান চলাচল। 

ঘটনার সূত্রপাত ভোর পাঁটটা নাগাদ। জম্মু শ্রীনগর জাতীয় সড়ক সংলগ্ন বান টোল প্লাজার কাছে নিরাপত্তা বাহিনীর একটি নাকা যান জাতীয় সড়ক দিয়ে যাওয়া গাড়িগুলি পরীক্ষা করছিল। সেই সময়ই একদল জঙ্গি নিরাপত্তা রক্ষীদের লক্ষ্য করে  গুলি চালায়। পাল্টা গুলি চালায় নিরাপত্তা রক্ষীরাও। স্থানীয় প্রশাসনের দাবি পুলিশের সঙ্গে গুলির লাড়াইয়ে চার জঙ্গি নিহত হলেও বেশ কয়েকজন এলাকায় ছেড়ে জাতীয় সড়ক সংলগ্ন জঙ্গলে আশ্রয় নিয়েছে। 


এই ঘটনার পরেও গোটা এলাকার নিরাপত্তা বাড়ান হয়েছে। চিরুনি তল্লাশি চালান হচ্ছে জাতীয় সড়ক সংলগ্ন এলাকাগুলিতে। গত সপ্তাহে জম্মু ও কাশ্মীরের সোপিয়ানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে আলবদর জঙ্গি দলের দুই সদস্য নিহত হয়েছিল। স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে জঙ্গিদের প্রথমে আত্মসমর্পণের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু তারা নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর নির্বিচারে গুলি চালানোয় পাল্টা গুলি চালাতে বাধ্য হয় দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীরা।