সিএএ বিরোধী আন্দোলনে উত্তাল দেশ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে 'সবকা সাথ, সবকা বিকাশ'-এর মূল মন্ত্র আওড়াচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। মোদী যখন মুসলিমদের সাথে থাকার বার্তা দিচ্ছেন, তখন নাগরিকত্ব নিয়ে মুসলিমদের হুমকি দিলেন কর্ণাটকের বিজেপি বিধায়ক। যার জেরে ফের বিতর্কের মুখে বিজেপি সরকার। 

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে এবার বিতর্কিত মন্তব্য় করলেন কর্ণাটকের বিজেপি বিধায়ক সোমশেখর রেড্ডি। শুক্রবার একটি জনসভায় গেরুয়া দলের এই সদস্য বলেন-আমরা ৮০ শতাংশ, 'আপানারা কেবল জনসংখ্যার ১৫ শতাংশ। আপনারা সংখ্যালঘু। একবার চিন্তা করে দেখুন। এই বিপুল জনসংখ্যা যদি আপনাদের বিরুদ্ধে রাস্তায় নামে তাহলে কী হবে।' 

এখানেই থেমে থাকেনি রেড্ডির বাক্যবান। দক্ষিণ বেঙ্গালুরুর সাংসদ তেজস্বী সূর্যর মন্তব্য়কেও সমর্থন করেন এই বিধায়ক। তিনি বলেন, যারা সিএএ-র বিরোধিতা করছে তারা আসলে পানচারওয়ালা। এরা অশিক্ষিত , এদের নিজেদের বুদ্ধি বলে কিছু নেই। বিরোধী দল কংগ্রেস ওদের মনে দূষণের বিষ ঢোকাচ্ছে। যোগীর রাজ্য়ে যেভাবে সরকারি  সম্পত্তি নষ্ট করায় সাজা দেওয়া  হয়েছে এখানেও সেই একই ব্য়বস্থা করা হবে। সিএএ নিয়ে বিক্ষোভে দেখালে পুলিশের গুলি খেতে হবে। তখন দেখবেন কোনও হিন্দু চিকিৎসক আপনার সুশ্রুষা করছে। 

সম্প্রতি সিএএ নিয়ে কর্ণাটকে বিক্ষোভ দেখায় আন্দোলনকারীরা। বিক্ষোভকারীদের দমাতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে মারা যায় দুই ব্যক্তি। গত ১৯ ডিসেম্বর এই ঘটনার জেরে উত্তেজনা ছড়ায় ম্যাঙ্গালোরে। যারপরই একের পর একে উত্তেজক মন্তব্য় এসেছে বিজেপি শিবির থেকে।   

ইতিমধ্য়েই সোমশেখর রেড্ডির এহেন মন্তব্যে অস্বস্তি বেড়েছে কর্ণাটক বিজেপিতে। বিপাকে পড়ে নিজের মন্তব্যের সাফাইও দিয়েছেন রেড্ডি। সংবাদ মাধ্য়মে তিনি জানান, আমি কোনও সম্প্রদায়কে নিশানা করে কিছু বলিনি। আমি শুধু বলেছি হিন্দুরা দেশের জনসংখ্যার ৮০ শতাংশ। যদি ১৫ শতাংশ কেউ দেশের সম্পত্তি ধ্বংস করে তাহলে আমরা চুপ করে দেখতে পারি না। তবে তাতে চিড়ে ভেজেনি। সোশ্য়াল মিডিয়ায় ইতিমধ্য়েই ভাইরাল হয়েছে বিজেপি বিধায়কের এই বক্তব্য। যার জেরে দক্ষিণের রাজনীতির তাপ ছড়িয়েছে দিল্লি পর্যন্ত।