প্রধানন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদীর পর কানহাইয়া কুমার! আরও এক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব উঠে আসতে চলেছেন সিনেমার জগতে। তবে বড় স্ক্রিনে নয়, কানহাইয়ার উত্থানের কাহিনি নির্ভর আসতে চলেছে ওয়েব সিরিজ। আর সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে কানহাইয়ার ভূমিকায় থাকবে বিশাল চমক। এই চরিত্র দিয়েই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে পা রাখবেন সলমন খান।

বছর খানেক আগেও ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম, ওয়েব সিরিজ ভারতে সেভাবে জনপ্রিয় ছিল না। বি টাউনের বড় মাপের অভিনেতাদের সেখানে দেখা যেত না। কিন্তু ২০১৯ সালে এসে অবস্থাটা পাল্টে গিয়েছে। দর্শক এখন সিনেমা হল বা টিভি ছেড়ে ওয়েব দুনিয়াতেই বিনোদনের জন্য বেশি আস্থা রাখছেন। সইফ আলি খান বা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকিদের মতো প্রতিষ্ঠিত চিত্রতারকারা ইতিমধ্যেই ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছেন। এবার দেখা যেতে পারে সল্লু মিঞাকেও।

ওজন কমাচ্ছেন সলমন

ওয়েব সিরিজে কানহাইয়ার গল্প তুলে ধরতে চান বলিউডি পরিচালক আলি আব্বাস জাফর। এর আগে সলমনের সঙ্গে তিনি 'সুলতান', 'ভারত', 'টাইগার জিন্দা হ্যায়' ছবিতে কাজ করেছেন। জানা গিয়েছে, কানহাইয়ার ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য সলমন খান ইতিমধ্য়েই প্রাথমিক সম্মতি দিয়েছেন। কানহাইয়া হয়ে ওঠার জন্য ভাইজান প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিয়েছেন। ওজন কমাচ্ছেন। অনুসীলন করছেন গড় গড় করে বিহারী টানে হিন্দি বলাও। আলি জানিয়েছেন, কানহাইয়াকে কেন্দ্র করে সারা ভারতে ছাত্ররা যেভাবে আন্দোলিত হয়েছিল, যেভাবে সাধারণ ছাত্রদের মধ্য থেকে জন্ম হয়েছে এক নতুন নেতার - সেই কাহিনী সলমনকে আগ্রহী করে তুছে।

কী থাকবে ওয়েব সিরিজে?

জানা গিয়েছে কাহিনি শুরু হবে ২০১৬ সাল থেকে, আর শেষ হবে ২০১৯ লোকসভায় কানহাইয়ার প্রার্থী হওয়া দিয়ে। বিহারের এক সাধারণ পরিবার থেকে উঠে এসে কানহাইয়া জেএনইউ-তে ছাত্র সংসদের সম্পাদক হয়েছিলেন। ২০১৬ সালে তাঁর ও তাঁর সহযোগীদের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয় চত্ত্বরে দেশদ্রোহী স্লোগান দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। জেলেও যেতে হয়। অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগই প্রমাণিত হয়নি। লোকসভা নির্বাচন ২-এ তিনি বেগুসরাই কেন্দ্রে সিপিআই-এর টিকিটে প্রার্থী হয়েছেন। এই সবটাই দেখানো হবে সিরিজে। আপাতত ঠিক হয়েছে এই ওয়েব সিরিজের নাম হবে 'তাণ্ডব'।

সময় কোথায়?

কিছুটা সমস্যা রয়েছে সলমনের সময় পাওয়া নিয়ে। তিনি আপাতত 'দাবাং ৩' ছবির শুটিং করছেন। একই সঙ্গে ব্যস্ত রয়েছেন 'ভারত' ছবির প্রচারের কাজে। এরপর আবার রয়েছে সঞ্জয় লীলা বনশালির ছবি 'ইনশা আল্লা' ছবির শুটিং। আলি আব্বাস জাফরের টিম জানিয়েছে 'দাবাং ৩'-এর শুটিং শেষ হওয়ার পর 'ইনশা আল্লা'-এর শুটিং শুরুর মাঝে যে সময় পাওয়া যাবে, তার মধ্যেই 'তাণ্ডব'-এর শুটিং-এর কাজ সেড়ে ফেলা হবে।

সরকারি ঘোষণা হয়নি

এখনও পর্যন্ত সলমন বা আলি কেউই সরকারি ভাবে এই ওয়েব সিরিজ সম্পর্কে কোনও মুখ খোলেননি। কানহাইয়াও এই বিষয়ে কিছু বলেননি। কাজেই শেষ পর্যন্ত কানহাইয়ার ভূমিকায় ভাইজান অবতীর্ণ হন কি না সেটাই এখন দেখার।