বিজেপির সঙ্গে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের সম্পর্কের রসায়ন খুঁজতে প্রায়শই ব্যস্ত দেখা যায় নানাজনকে। প্রশ্ন ছোঁড়া হয়েছে, কেন ভারতরত্ন পেলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। এই বার সেই প্রশ্নের উত্তর দিলেন নরেন্দ্র মোদী।

এদিন লোকসভা থেকে  বিরোধিদের খোঁচা দিয়ে মোদী বলেন, '২০০৪ সালের আগে দেশে অটলবিহারী বাজপেয়ীর সরকার ছিল। কেউ এর কখনও প্রশংসা করেননি। নরসিমা রাও-এর নামও করেননি কেউ। আমি খুব ছোট লোক। কিন্তু আমিই প্ৰথম জন যে বলছে আজ পর্যন্ত সবাইকে সঙ্গে নিয়ে দেশের প্রগতির কথা ভেবেছে।' 

নিজের যুক্তির সপক্ষে হাতেকলমো প্রমাণও দেন তিনি। বলেন, 'গুজরাটে আমি  বহুদিন মুখ্যমন্ত্রী ছিলাম। গুজরাটের পঞ্চাশ বছরে আমি বলেছিলাম, এই পঞ্চাশ বছরের রাজ্যপালদের ভাষণের একটি গ্রন্থ হোক। আমি আগের কাজকে মান্যতা দিই না একথা ভুল।'

এর পরেই বিস্ফোরণ। মোদী বলেন, 'কই মনমোহন সিংহের মতো ঘরের লোকের বাইরে তো কেউ ভারতরত্ন পায়নি ইউপিএ আমলে। আমার আমলে প্রণবদা ভারতরত্ন পেয়েছে। আমার এ কথা বলতে ভাল লাগছে না। এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছে দেশের মানুষ। কেউ একক ভাবে কিছু করেনি।'
 
এই বিষয়ের অন্য খবরঃ আরও আরও উঁচুতে উঠুন, কংগ্রেসকে প্রধানমন্ত্রীর ঠেস, হাসির ফোয়ারা লোকসভায়

নরেন্দ্র মোদী এদিন সবকা সাথ সবকা বিকাশ স্লোগানের স্বপক্ষেই বারবার কথা বলেছেন। তার যুক্তি,  'বহুদিন বাদে দেশে একটি মজবুত জনাদেশ দিয়েছে। একই সরকারকে দ্বিতীয়বার প্রথম বারের তুলনায় বেশি ক্ষমতা দিয়ে এনেছে  মানুষ। প্রমাণ হয়েছে আমাদের মতদাতা কতটা জাগরুক। ২০১৪ সালে আমরা অপরিচিত ছিলাম, কিন্তু দেশ স্থিতাবস্থা থেকে বেরিয়ে আসার জন্যে আমাদের নিয়ে এসেছিল। আর ২০১৯-এর জনাদেশ পরীক্ষায় করেই আমাদের জনতা জনার্দন নিয়ে এসেছে। এ লোকতন্ত্রের বড় শক্তি।'