এসেছিলেন কর্নাটকের বন্যা পরিস্থিতি পরিদর্শনে। বেশ চলছিল, দলীয় কর্মীদের সঙ্গে ঘুরে ঘুরে বন্যার জলে ভেঙে যাওয়া রাস্তাঘাট, বাঁধ সবই খুঁটিয়ে দেখছিলেন। এরমধ্যেই বাদামির এক গ্রামে গিয়ে বেজায় অস্বস্তিতে পড়লেন কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের বিশিষ্ট কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া।

গত কয়েকদিনের বন্যায় কর্নাটকের বিস্তৃর্ণ এলাকার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এখন জল নামলেও সাধারণ মানুষেরক দুর্ভোগ কমেনি। বহু জায়গায় বাঁধ ভেঙে গিয়েছে, রাস্তা ভেঙে গিয়েছে, ভূমিধস নেমেছে। বহু মানুষ ঘরবাড়ি হারিয়েছেন। বিশশেষ করে কর্নাটকের বাদামি এলাকার অবস্থা সবচেয়ে খারাপ। বুধবার সেখানেই স্থানীয় কর্মীদের নিয়ে পরিস্থিতি ঘুরে দেখেছিলেন কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া।

বাদামির একটি গ্রামে থমকে যায় তাঁর কনভয়। সেখানে স্থানীয়রা বাড়ির দাবিতে ঘেরাও করেন সিদ্দারামাইয়াকে। এক বৃদ্ধা এগিয়ে এসে জানান ভোটের আগে সিদ্দারামাইয়াকে ভোট দিলে নতুন ঘরবাড়ি করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ভোট একবছরেরও বেশি আগে মিটে গেলেও এখনও সেই ঘরবাড়ির একটি ইঁটের দেখাও মেলেনি।

সেই সময় বন্যা দেখতে এসে প্রায় -জলে পড়ে যাওয়ার জোগার হয় কংগ্রেস নেতার। কোনও সদুত্তর দিতে না পেরে আমতা আমতা করতে থাকেন তিনি। কোনও রকমে সেই জায়গা থেকে গাড়ি নিয়ে চলে যান তিনি।