সাম্প্রতিককালে উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশির তিনটি ব্লকের সাস্থ্য দফতর থেকে পাওয়া রিপোর্টে কার্যত চক্ষু চড়কগাছ উত্তরাখণ্ড জেলা প্রশাসনের। উত্তরকাশির দুন্ডা, ভাটওয়ারি এবং নওগাঁও ব্লকের ১৩৩টি গ্রামে জন্ম হয়েছে ২১৬জন সদ্যোজাতের। আর রেকর্ড বলছে এই ২১৬ সদ্যোজাতের মধ্যে নেই কোনও কন্যা সন্তান। বিষয়টি অবিশ্বাস হলেও এটাই সত্যি। 

আর  এই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই কার্যত নড়েচড়ে বসেছে উত্তরাখণ্ড প্রশাসন। জেলা স্বাস্থ্যদফতর সূত্রে খবর, দুন্ডা ব্লকে গত তিন মাসে ২৭টি গ্রামে ৫১টি সন্তান ভূমিষ্ট হয়েছে, যাদের মধ্যেই সবকটিই পুত্র মন্তান। পাশাপাশি ভাটওয়ারি ব্লকেও একই ধারা চোখে পড়েছে। সেখানে জন্ম নেওয়া ৪৯টি সদ্যোজাতের মধ্যে একটিও কন্যাসন্তান জন্ম নেয়নি। একইভাবে নওগাঁও ব্লকে,২৮টি গ্রামে জন্ম নেওয়া  ৪৭টি সন্তানের মধ্যে সকলেই পুত্রসন্তান বলে জানা গিয়েছে।

বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই তা নিয়ে সন্দেহের প্রকাশ করে জেলা প্রশাসন মধ্যে। এরপরই এই বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসন। উত্তরাখণ্ডের জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের কথায়, তাঁরা উত্তরকাশির গ্রামে গ্রামে তাঁদের একটি প্রতিনিধির দল পাঠাবেন, যাঁদের প্রধান কাজ হবে প্রতিটি পরিবারে ০-৬ বছর বয়স পর্যন্ত কতজন শিশু রয়েছে এবং তাদের মধ্যে কতজন ছেলে, কতজন মেয়ে-সেই বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করা। যদি খবর অনুসারে পুত্র এবং কন্যা সন্তানের মধ্যে এমন বৈষম্য থাকে তাহলে সেই বিষয়ে পূর্ণ তদন্তের পথে নামবেন তাঁরা।