আজকের দিনে কারওর থেকে হাজার হাজার টাকা ধার করেও মানুষের সেই ধার শোধ করার মতো মানসিকতা থাকে না। কিন্তু এই ঘটনা এক অন্যরকম মানবিকতার নজির গড়ল। ঘটনাটি ঘটেছিল আজ থেকে প্রায় ৩০ বছর আগে। সেবার কেনিয়ার মন্ত্রী রিচার্ড টোঙ্গি ভারতে এসে যখনই অর্থসংকটে পড়েছেন সেইসময়ে তাঁকে অর্থ সাহায্য করেছিলেন ঔরঙ্গবাদের এক মুদি দোকানী কাশীনাথ গাওলি। তিনি তাঁকে সেইদিন ২০০ টাকা দিয়েছিলেন।

তারপর দেশে ফেরার সময়ে বিপদের দিনে পাশে দাঁড়ানো বন্ধুকে সেই টাকা ফিরিয়ে দিতে না পারলেও, দুর্দিনে পাশে দাঁড়ানো বন্ধুকে ভুলতে পারেননি মন্ত্রী রিচার্ড টোঙ্গি। আর সেই কারণে প্রায় ৩০ বছর পরে সুদূর কেনিয়া থেকে ভারতে তিনি ছুটে এসেছেন তাঁর সেই ২০০ টাকার ঋণ শোধ করবেন বলে। 

প্রসঙ্গত কেনিয়া থেকে খানিক দূরে অবস্থিত নাইয়ারিবারি চাচে এলাকার সাংসদ তিনি। ১৯৮৫-৮৯ সালে তিনি ঔরঙ্গবাদে এসেছিলেন ম্যানেজমেন্ট পড়তে। এরপর পড়াশোনা শেষে যখন তিনি বাড়ি ফেরার সময়ে মুদি দোকানী কাশীনাথ গাওলির কাছে তাঁর ধারের পরিমাণ গিয়ে দাঁড়িয়েছিল ২০০ টাকায় ।

 

এরপর সোমবার যখন তিনি কাশীনাথ গাওলির বাড়িতে এলেন সেদিন নিজের চোখকেই বিশ্বাস করতে পারেননি তিনি। সস্ত্রীক ভারতে এসে তিনি  রীতিমতো আবেগপ্রবণ হয়ে ওঠেন। সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে  তিনি জানিয়েছেন, যখন তিনি ছাত্র হিসাবে ভারতে ছিলেন তখন, যখনই অর্থসংকটে পড়েছেন, তখন তাঁকে সাহায্য করেছিলেন কাশীনাথ গাওলি ছাড়া আরও অনেকে। তাই সেই কারণে তাঁকে ধন্যবাদ জানানোর জন্যই আবার ভারতে এসেছেন তিনি।