প্রকৃতির এমন প্রচুর বিষয় রয়েছে, যার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা থাকা সত্ত্বেও, সেগুলি সম্বন্ধে জানার পরেও আমাদের বিশ্বয় থেকেই যায়। সে রকমই একটি রহস্যময় পর্যটন ক্ষেত্র হল কানাডার আলবের্তা প্রদেশের ‘ওয়াটারটন লেকস ন্যাশনাল পার্ক’-এর ক্যামেরন জলপ্রপাত। দশ পাঁচটা সাধারণ জলপ্রপাতের মত দেখতে হলেও, এই জলপ্রপাতের রয়েছে একটি বিশেষ আকর্ষণ।

ক্যামেরন জলপ্রপাত, যেটি অবস্থিত কানাডার অ্যালবার্টা ওয়াটরন লেকস ন্যাশনাল পার্কে। সাধারণ এই জলপ্রপাতের রং জলের মত স্বচ্ছ হলেও বর্ষাকালে বদলে যায় এর জলের রং। আর তার ফলে সৃষ্টি হয় অপার্থিব প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। যেই দৃশ্য মুগ্ধ করে পর্যটকদের। এই দৃশ্য যে সকল পর্যটকরা উপভোগ করেছেন, তারা নিজেদের ভাগ্যবান বলে মনে করেন। তবে জলের এই রং পরিবর্তন নিয়ে অনেকের মনেই ছিল নানান ভ্রান্ত ধারনা।  অনেকেই মনে করতেন সেখানে কোনও গুপ্তধন রয়েছে। সেই কারনেই বর্ষাকালে পরিবর্তিত হয়ে যায় এই জলপ্রপাতের রং। তবে এই বিষয়ে গবেষকরা জানিয়েছেন, এই জলপ্রপাতের সংলগ্ন এলাকায় রয়েছে ওয়াটার্টন এবং গ্লসিয়ার। স্যার চার্লস আর্থার ম্যান্ডার শান্তির উদ্দেশ্যে রোটরি ইন্টারন্যাশনাল-এর পার্কটি গঠন করেছিলেন। কানাডায় উপস্থিত বাকি হ্রদগুলোর মধ্যে এই হ্রদটি সবচেয়ে গভীর।

আরও পড়ুন- মৃতের তকমা নিয়ে বেঁচে থাকা ১২ মাস, 'ডেড সি'-র রহস্য সত্যিই অবাক করে

 

পর্যটকদের মধ্যে এই জলপ্রপাতটি হল অন্যান্য যে কোনও পর্যটক স্থানের থেকে আলাদা। স্থানীয়দের মতে, এই জলপ্রপাতের রং বছরের বাকি সময়ে সাধারণ থাকলেও বর্ষার সময় পাহারের গা বেয়ে গোলাপি জলের ধারা নেমে আসতে দেখা যায়। এটাই এই অঞ্চলের বিশেষ অকর্ষণ। এই জলের রং এর পরিবর্তন দেখতেই বছর এই বিশেষ সময়ে বহু পর্যটক ভিড় জমান। দেশ বিদেশের পর্যটকরা এসে উপস্থিত হন এই অপার্থিব সৌন্দর্য মন ভরে উপভোগ করার জন্য। তাই সুযোগ পেলে আপনিও একবার ঘুরে আসতে পারেন কানাডার অ্যালবার্টা ওয়াটরন লেকস ন্যাশনাল পার্কে। আর স্বচক্ষে দেখে আসুন প্রকৃতির এই সৌন্দর্যের জাদু।