যত দিন যাচ্ছে ততই যেন ভয়াবহ আকার ধারণ করছে নভেল করোনা ভাইরাস। মারণ জীবাণুর আক্রমণে চিনে মৃতের সংখ্যা মঙ্গলবার ১৩২-এ পৌঁছেছে। আক্রান্তের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ৬০০০। বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে বলেছেন, আগামী দশ দিনে আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে নভেল করোনার আক্রমণ। যার জেরে প্রচুর প্রাণহানির আশঙ্কা রয়েছে। 

বুধবার চিনের স্বাস্থ্য দফতরের তরফ থেকে জানানো হয়েছে. মঙ্গলবার পর্যন্ত নভেল করোনা ভাইরাস থেকে নিউমোনিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৯৭৪। চিনের ৩১টি প্রাদেশিক অঞ্চল থেকে এই তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। 

এর মধ্যে সবথেকে খারাপ অবস্থা হুবেই প্রদেশের। হুবেই-এর রাজধানী উহান-এই মহামারির আকার নিয়েছে নভেল করোনা। শুধুমাত্র হুবেই প্রদেশেই মোট ৩৫৫৪ জন নভেল করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। চিনে মোট মৃত ১৩২ জনের মধ্যে ১২৫ জনই এই অঞ্চলের। 

আরও পড়ুন- করোনাভাইরাস-উদ্বেগের মধ্যেই আতঙ্ক ছড়ালো দৈত্যাকৃতি মশা, বরাভয় দিচ্ছেন পতঙ্গ বিশেষজ্ঞরা

যে ছ' হাজার রোগীর শরীরে নভেল করোনার জীবাণু নির্ণয় করা গিয়েছে, তাঁদের মধ্যে ১২৩৯ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানানো হয়েছে। হুবেই প্রদেশ থেকেই নতুন ৮৪০ জনের শরীরে এই জীবাণুর সন্ধান মিলেছে। যার অর্থ আরও দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়ছে নভেল করোনা। যে রোগীরা মারা যাচ্ছেন, তাঁদের অধিকাংশেরই বয়স ষাটের উপরে বলে জানা গিয়েছে। 

নভেল করোনা আক্রান্তের কারও শরীর থেকেই এই জীবাণু অন্য কারও দেহে ছড়িয়ে পড়ছে বলে আগেই জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। চিনা বিশেষজ্ঞ ঝং নানশান বলেন, 'এই মহামারি ঠিক কখন তার চূড়ান্ত আকার ধারণ করবে তা বলা মুশকিল। তবে আগামী সাত থেকে দশদিনের মধ্যেই তা আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে বলেই আমার অনুমান।' তিনি জানিয়েছেন, আক্রান্তদের দ্রুত চিহ্নিত করে আলাদা করে রাখা ছাড়া এই জীবাণু ঠেকানোর অন্য কোনও উপায় নেই। 

নভেল করোনার জীবাণু থেকে তৈরি হওয়া মহামারির পরিস্থিতি ঠেকাতে চিনা সরকারের তরফে বিশেষজ্ঞদের দল গঠন করা হয়েছে, তার প্রধান ঝং। তিনি জানিয়েছেন, অধিকাংশ রোগীর ক্ষেত্রেই জ্বর এবং দুর্বলতা করোনা নভেল ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রাথমিক উপসর্গ বলে দেখা গিয়েছে। তবে এত ভয়ের মধ্যেও একটাই আশার কথা শুনিয়েছেন ওই চিনা বিশেষজ্ঞ। ২০১৭ সালে  'সার্স' ভাইরাস-এর জেরে তৈরি হওয়া একই ধরনের পরিস্থিতি প্রায় ছ' মাস স্থায়ী হয়েছিল। চিনা বিশেষজ্ঞ ঝং-এর দাবি, নভেল করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অতদিন স্থায়ী হবে না।