বিশ্বখ্যাত সুইডিশ আসবাব প্রস্তুতকারক সংস্থা আইকেয়া। সেই সংস্থারই চিনে অবস্থিত একটি দোকানে এক চিনা মহিলার একটি অশ্লীল ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিও ক্লিপে দেখা দিয়েছে জনৈক চিনা মহিলা ওই আসবাব সংস্থারএকটি ফার্নিচার স্টোরের শো-রুমের বিভিন্ন সোফা এবং বিছানায় অর্ধনগ্ন হয়ে হস্তমৈথুন করছেন। অন্যান্য ক্রেতারা কিন্তু, না জেনেই তাঁর পিছনে হেঁটে চলে বেড়াচ্ছেন। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর আইকেয়ার পক্ষ থেকে দুঃখ প্রকাশ করে বলা হয়েছে চিনের দোকানগুলিতে সুরক্ষা ব্যবস্থার বিষয়ে তাঁরা 'আরও যত্নবান' হবে।

ভিডিওটির সেন্সরহীন সংস্করণ চিনা সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। আইকেয়া জানিয়েছে তারা দৃঢ়ভাবে ওই ধরণের আচরণের বিরোধিতা ও নিন্দা করছে। ঘটনাটি জানার পরেই সংস্থার পক্ষ থেকে স্টোরটি চিনের যে শহরের সেখানকার পুলিশে তারা ঘটনাটি সম্পর্কে জানিয়েছে। আসবাব সংস্থাটির পক্ষ থেকে সমস্ত গ্রাহককে 'সুশৃঙ্খল এবং সভ্য ভাবে' স্টোরে আসার আহ্বান জানিয়েছে তারা।

ওই মহিলা এবং যিনি তার ভিডিও তুলেছেন, তাদের পরিচয় জানা যায়নি। চিনা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের অনুমান ঘটনাটি গুয়াংডং প্রদেশের। তবে ভিডিওটি কোন সময়ে তোলা তাই নিয়েও ধন্দ দেখা দিয়েছে। ভিডিও-তে যাদের দেখা যাচ্ছে, তাদের কারোর মুখে মাস্ক নেই। গত বছর ডিসেম্বরে করোনাভাইরাস মহামারির প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর থেকে যা ভাবাই যায় না।

চিনে ইচ্ছাকৃতভাবে প্রকাশ্যে নগ্নতার জন্য দশ দিনের জেলের সাজা ভোগ করতে হয়। অনলাইনে অশ্লীল বিষয়বস্তু আপলোড এবং প্রচার করলে তার সাজা ১৫ দিনের কারাদণ্ড এবং সর্বোচ্চ ৩,০০০ ইউয়ান জরিমানা।