টোকিওতে বাড়ির মধ্যেই মৃত অবস্থায় পাওয়া গেল জাপানের বিখ্যাত অভিনেত্রী ইউকো তাকেউচিকে। টিভি ও সিনেমা জগতের জনপ্রিয় ছিলেন ইউকো। কিন্তু  কী কারণে তাঁর এমন মৃত্যু তাই নিয়েই রহস্য দানা বাঁধছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশ মনে করেছেন দুই সন্তানের মা আত্মঘাতী হয়েছেন। কিন্তু কী কারণে আত্মহত্যা তা নিয়েই তৈরি হয়েছে রহস্য। তাঁকে বাড়িতেই মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেন স্বামী তাইকি নাকাবায়সি। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। 

১৯৮৯ সালে হরর ফিল্ম রিঙ্গুতে অভিনয় করেছিলেন। যা রীতিমত জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। ২০০২ সালে রিঙ্গুর অনুকরণেই তৈরি হয়েছিল হলিউড মুভি দ্যা রিঙ। এইচবিও টিভি চ্যালেনের বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় সিরিয়ালেও অভিনেত্রী ছিলেন ইউকো। পরপর তিন বছর জাপানের অ্যাকাডেমি পুরষ্কারও পেয়েছিলেন তিনি। মাত্র ৪০ বছরেই জনপ্রিয় অভিনেত্রীর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ তাঁর অনুগামীরা। 

ইউকোর মৃত্যু আবারও প্রশ্ন তুলে দিল আত্মহত্যা নিয়ে। কারণ জাপানে একের পর এক প্রতিভা সম্পন্ন মানুষ আত্মহত্যা করছেন। এমাসের শুরুতেই অভিনেত্রী আসিনা আত্মহত্যা করেছেন। জুলাই মাসে আত্মঘাতী হয়েছিলেন অভিনেতা হারুমা মিউরা। মে মাসে নিজেকে শেষ করেদিয়েছিলেন রেসলিং তারকা হানা কিমুরা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২০১৫ সাল থেকেই আত্মহত্যার রুখতে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপু নিয়েছিল জাপান সরকার। তারপর থেকে কিছুটা হলেও হ্রাস পেয়েছে আত্মহত্যার সংস্খায। কিন্তু বিশ্বের সবথেকে বেশি আত্মহত্যা এখনও হয় এইদেশেই।