গত তিন-চার মাস ধরেই তাঁকে কেউ ফোন করছিলেন না। সোশ্যাল মিডিয়াতেও কেউ খবরাখবর নিচ্ছিলেন না। কিছুই বুঝে উঠতে পারছিলেন না ৭৫ বছরের অ্যালান হ্যাটেল। শেষে বাড়ির কাছের এক গোরস্থানে গিয়ে একেবারে শিউরে উঠলেন তিনি। সামনে এ যে তাঁর নিজেরই সমাধি!

ঘটনাটি ঘটেছে স্কটল্যান্ডে। অ্যালান হ্যাটেল জানিয়েছেন, স্কটল্যান্ডের ফোরফার এলাকার নিউমনথিল গোরস্থানে গিয়ে তিনি তাঁর নিজের সমাধিটি দেখতে পান। তাঁর দাবি তাঁর অজান্তেই এই কাজ করা হয়েছে। এমনকী, তিনি কোনও দিনই সমাধিস্থ হতেও চাননি বলে দাবি করেছেন অ্যালেন। তাঁর ইচ্ছা মৃত্যুর পর তাঁর দেহটি দাহ করা হোক।

এই সমাধির জন্যই তাঁর পরিচিতরা সকলে তাঁকে মৃত বলে ধরে নিয়েছিলেন বলে দাবি ওই বৃদ্ধের। আর সেই কারণেই কেউ তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করছিলেন না গত তিন-চার মাস ধরে। সমাধির ওই পাথরটা দেখার তিনি জনে জনে সকলকে ফোন করে জানিয়েছেন, তিনি এখনও জীবিত।

কিন্তু, কে করল এই কাজ? তিনি জানিয়েছেন গোরস্থান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন। কিন্তু, যেহেতু সমাধির জন্য জমি কে কিনেছেন সেই বিষয়ে গোপনীয় রাখার নিয়ম। তাই তারা কে ওই কাজ করেছে জানায়নি। তবে হ্যাটেল-এর ধারণা এই কাজের পিছনে হাত রয়েছে তাঁর প্রাক্তন স্ত্রীর। প্রায় 26 বছর আগে তাঁদের বিয়ে ভেঙে গিয়েছিল। কিন্তু বরাবরই তাঁর স্ত্রী চাইতেন তাঁদের দুজনকে একসঙ্গে এক জায়গায় কবর দেওয়া হবে। সেই সাধ পূরণের লক্ষ্যেই প্রাক্তন স্ত্রী এমনটা করেছেন বলে ধারণা অ্যালেন হ্য়াটেল-এর।  

প্রাক্তন স্ত্রী ছাড়াও হ্যাটেলের আরও দুই ছেলেমেয়ে রয়েছে। তাঁরা নিজ নিজ জায়গায় প্রতিষ্ঠিত। কিন্তু কেউই এই বিষয়ে মুখ কুলতে চাননি। 'এটি একটি পারিবারিক বিষয়, ব্যক্তিগত স্তরেই তা মিটিয়ে নেওয়া হবে', বলে তাঁরা এডি়য়ে গিয়েছেন।