গোটা বিশ্বের গতি স্তব্ধ করেছে করোনা ভাইরাস। সেই ভাইরাস নিয়ে সহজ কয়েকটি প্রশ্ন এখনও ঘুরছে গবেষক ও বিজ্ঞানীদের মাথায়। সেগুলি হচ্ছে করোনা ভাইরাস কোথা থেকে এল, কিভাবে ছড়াল এবং এটি  প্রতিরোধের উপায় কি? এই সব সহজ প্রশ্নের সমাধান খুঁজে পেতে ভার্চুয়াল হ্যাকাথনের আয়োজন করেছে  আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসা।

ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি এবং জাপান অ্যারোস্পেস এক্সপ্লোরেশন এজেন্সি যৌথভাবে এই ভার্চুয়াল হ্যাকাথনের আয়োজন করেছে। প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী প্রোগ্রামার, ডিজাইনার, স্টোরিটেলার, মেকার, বিল্ডারস, প্রযুক্তিবিদরা স্যাটেলাইট ডেটার মাধ্যমে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের উপায় খুঁজবেন নাসা স্পেস  অ্যাপস কোভিড-১৯ চ্যালেঞ্জ-এ। ৪৮ ঘন্টাব্যাপী এই হ্যাকাথনে এশিয়া থেকেই অংশ নিয়েছে ২১ শো  প্রতিযোগী।

নাসা জানিয়েছে, বিশ্বে এটি প্রথম বৈশ্বিক ভার্চুয়াল হ্যাকাথন। প্রসঙ্গত, হ্যাকাথন হচ্ছে সমস্যাভিত্তিক কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ইভেন্ট বা প্রতিযোগিতা । সম্মিলিতভাবে কোন সমস্যার গভীরে ঢুকে তার মুল কারণ  খুঁজে বের করা এবং সেটার কার্যকর সমাধান তৈরি করা হচ্ছে এর লক্ষ্য।

করোনা মহামারির কথা মাথায় রেখে এবারের প্রতিযোগিতায় চারটি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। সেগুলি হল- লোকাল রেসপন্স/চেঞ্জ অ্যান্ড সল্যুউশন, ইমপ্যাক্ট অব কোভিড-১৯ অন দ্য আর্থ সিস্টেম/আর্থ সিস্টেম রেসপন্স, লার্নিং অ্যাবাউট দ্য ভাইরাস অ্যান্ড ইটস স্প্রেড ইউজিং স্পেস-বেইজড ডাটা এবং ইকোনমিক  অপরচুনিটি ইমপ্যাক্ট অ্যান্ড রিকোভারি ডিউরিং অ্যান্ড ফলোয়িং কোভিড-১৯।

নাসা জানিয়েছে , অনলাইন এই প্রতিযোগিতায় একদিকে আমেরিকান, ইউরোপীয় ও জাপানি মহাকাশ এজেন্সির তথ্য দিয়ে যেমন সাহায্য করা হবে, অন্যদিকে প্রতিযোগীরাও খুঁজে বের করতে পারেন করোনার মূল কারণ এবং এটি কিভাবে ছাড়াচ্ছে, করোনায় বিশ্বে যে প্রাণহানি ও অর্থনৈতিক ক্ষতি হচ্ছে তা থেকে বাঁচার উপায় কি। শনি ও রবি- এই দু’দিন এই প্রতিযোগিতা হবে। ২০১৯ সালে এমন একটি প্রতিযোগিতায় আমেরিকা টেকসই  উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে গেলে কোন পথে এগোতে হবে তার সমাধান সূত্র বের করতে সমর্থ হয়েছিল স্যাটেলাইট ডেটা দিয়ে। সেটি ছিল সরাসরি আয়োজন। তারপর এই উদ্যোগ।