প্রায় ২০০-রও বেশি বলগা হরিণের মৃতদেহ পাওয়া গেল নরওয়েতে। ঘটনাটি ঘটেছে নরওয়ের সোওয়ালভার্ড-এর আর্কটিক দ্বীপপূঞ্জে। সেখান থেকেই উদ্ধার করা হয়েছে ২০০টিরও বেশি বলগা হরিণের দেহ। 

খাদ্যের আকাল এবং তার পাশাপাশি জলবায়ুর পরিবর্তনের জন্য এই এই বিপুল সংখ্যক হরিণের মৃত্যু হয়েছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই বিপুল পরিমাণ বলগা হরিণের মৃ্ত্যুতে পরিবেশবিদদের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ দেখা দিয়েছে। নরওয়ের পোলার ইনস্টিটিউটের তরফে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এমন ঘটনা এর আগে কখনও ঘটেনি। বিশেষজ্ঞরা আরও জানিয়েছেন, বিশ্ব উষ্ণায়ন আজ যে হারে বাড়ছে তা সত্যিই খুবই চিন্তার বিষয়।

বিশেষজ্ঞরা আরও জানিয়েছেন, একসঙ্গে এই বিপুল পরিমাণ জীবের মারা যাওয়ার খবর খুবই ভয়ানক। জলবায়ুর পরিবর্তন যে প্রকৃতির জন্য কতখানি ক্ষতিকর এটাই তার উদাহরণ। সোওয়ালভার্ড-এ গত ডিসেম্বর মাসে প্রবল বৃষ্টিপাত হয়েছিল। আর সেই কারণেই প্রাণীদের মধ্যে খাদ্যসঙ্কট দেখা গিয়েছিল। আর যার ফল স্বরূপ এই মৃত্যু বলেই সন্দেহ প্রকাশ করছেন বিজ্ঞানীরা। পরিবেশবিদরা মনে করছেন জলবায়ুর সামান্যতম পরিবর্তনও যে কতখানি প্রভাব বিস্তারকারী তার উদাহরণ হল এই বলগা হরিণের মৃত্যু।

প্রসঙ্গত, মেরু অঞ্চলের তৃণভোজী প্রাণীদের মধ্যে অন্যতম হল এই বলগা হরিণ। তুষারাবৃত নরওয়েতে সবুজ ঘাসই এদের প্রধান খাদ্য। শীতকালে তুষারাবৃত তৃণভূমি থেকে খাদ্য জোগাড় করা তাদের পক্ষে একপ্রকার অসম্ভব হয়ে যায়। পরিবেশবিদদের আশঙ্কা, এভাবে তারা শেষ হয়ে গেলে বাস্তুতন্ত্রের ওপরেও এর ব্যপক প্রভাব পড়বে।