'প্রি ওয়েডিং কোর্স' করা বাধ্যতামূলক করতে চলেছে ইন্দোনেশিয়ার সরকার। শুধু বিয়ের জন্য় রাজি থাকলেই এখন থেকে সে দেশে বিয়ে করা যাবে না। প্রি ওয়েডিং এই  কোর্সটি হল  তিন মাসের। এই কোর্সে পাশ করে সরকারি শংসাপত্র হাতে পেলে তবেই বিয়ের অনুমতি মিলবে। ২০২০ সাল থেকে এমনই নিময় চালু হতে চলেছে ইন্দোনেশিয়ায়।

আরও পড়ুন, জলদস্যুদের হাত থেকে অবশেষে মিলল মুক্তি, রেহাই পেলেন ১৮ জন ভারতীয়

জানা গিয়েছে, তিন মাসের  'প্রি ওয়েডিং কোর্স' এই কোর্স একেবারে বিনামূল্যেই করা যাবে। এই কোর্সের সমস্ত খরচই বহন করবে ইন্দোনেশিয়ার সরকার। প্রথম বারটায় পরীক্ষায় পাশ না করতে পারলেও চিন্তা নেই। পরীক্ষার্থী আবারও পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ পাবেন। যতক্ষণ না পরীক্ষায় পাশ করছেন ততবার পরীক্ষা দিতে পারবেন কোনও পরীক্ষার্থী। কিন্তু একধিকবার পরীক্ষা দিলেও যতক্ষণ না পরীক্ষায় পাশ না হওয়া অবধি মিলবে না কোনও বিয়ের অনুমতি।  সরকারি শংসাপত্র হাতে পেলে তবেই বিয়ে করতে দেবে করার অনুমতি ইন্দোনেশিয়ার সরকার। সে দেশের 'হিউম্যান ডেভেলপমেন্ট অ্যান্ড কালচারাল অ্যাফেয়ার্স কোঅর্ডিনেটিং' দফতরের পক্ষ থেকে সম্প্রতি এ কথা জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন, ৩ দিন ধরে প্রকাশ্যে ঝুলবে মুশারফের লাশ, ভয়ঙ্কর নির্দেশ দিল পাক আদালত

আসলে এই নিয়মের পিছনে কারণটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইন্দোনেশিয়াতে সম্প্রতি বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। বিবাহ বিচ্ছেদের কারণ হিসাবে সামনে এসেছে মনোমালিন্য, মানিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে ইচ্ছার অভাব, সন্তান প্রতিপালনের ক্ষেত্রে দায়িত্বহীনতা ইত্যাদি বিষয়। তাই  বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনায় ইতি টানতে এই কোর্স চালু করে তা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। যাতে সুখী দাম্পত্য় ফিরে আসে ইন্দোনেশিয়ায়।