প্রায় ৩০ বছর হল পতন হয়েছে সোভিয়েত রাশিয়ার। কিন্তু এখনও রুশ কর্তৃপক্ষ সোভিয়েত যুগ-কে ভুলততে পারছে না। মঙ্গলবারই বিশ্বের প্রথম কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন নিবন্ধন করার কথা ঘোষণা করেছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাদের ভাইরাসটির নাম দেওয়া হল 'স্পুটনিক ভি'। স্পুটনিক ছিল সোভিয়েত যুগে মহাকাশে পাঠানো প্রথম স্যাটেলাইট বা কৃত্রিম উপগ্রহ। তার নামেই নামকরণ করা হল রুশ করোনা টিকার। শুধু তাই নয়, দারুণ আগ্রহ তৈরি হয়েছে কোন কোন দেশ এই টিকা পেতে চলেছে, তাই নিয়েও।

রুশ প্রত্যক্ষ বিনিয়োগ তহবিল বা আরডিআইএফ-এর প্রধান, কিরিল দিমিত্রিয়েভ জানিয়েছেন, সেপ্টেম্বর মাস থেকে এই টিকার বাণিজ্যিক উত্পাদন শুরু করা হবে। তবে সেই টিকা ভারত পাবে কিনা তা এখনও জানা যায়নি। তিনি আরও জানিয়েছেন এখনও পর্যন্ত ২০টি দেশ এই ভ্যাকসিনের একশো কোটি ডোজ চেয়ে আবেদন করে রেখেছে। সেই ২০টি দেশ কারা কারা তা অবশ্য জানায়নি রুশ কর্তৃপক্ষ। কাজেই সেই তালিকায় ভারত রয়েছে কি না, সেই বিষয়টি এখনও অস্পষ্ট। দিমিত্রিয়েভ আরও জানিয়েছেন ভ্যাকসিনটির উৎপাদনের জন্য পাঁচটি দেশের সঙ্গে চুক্তি করেছে রাশিয়া। প্রতি বছর তারা ভ্যাকসিনটির ৫ কোটি মিলিয়ন ডোজ তৈরি করতে প্রস্তুত।

তবে বিশ্বের অনেকে জায়গা থেকেই রাশিয়ার ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা এবং সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। কারণ, ভ্যাকসিনটি নিবন্ধিত হলেও তা 'শর্তাধীন' বলে জানিয়েছেন রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরশকো। তিনি বলেছেন, একদিকে যখন ভ্যাকসিনটির উৎপাদন চলবে, আরেকদিকে চূড়ান্ত স্তরের পরীক্ষাও চলবে। তবে ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতা এবং সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তোলা আসলে, রুশ টিকা-কে 'অসম্মান' করার জন্য পরিকল্পনা করে 'সমন্বিত ও সতর্কভাবে প্রচারিত মিডিয়া হামলা' বলেছেন দিমিত্রেয়েভ। ভ্যাকসিনের সুরক্ষার বিষয়ে পুতিন বলেছিলেন, তাঁর এক কন্যাকেও এই টিকা দেওয়া হয়েছে, এবং তিনি ভালো আছেন।