জলবায়ুর পরিবর্তনের জন্য বিরাট ক্ষতির মুখে বিশ্বের প্রায় সব দেশ। কিন্তু পরিবর্তীত পরিবেশের সঙ্গে মোকাবিলা করতে পারে যে গাছ, মানুষ নিজের প্রয়োজন সেই গাছ কেটে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ করে তুলছে। তাই প্রকৃতির রোশের মুখে পড়ছে সব দেশ। 

বনভূমির অবাধ ধ্বংস করার ফলে জলবায়ুর পরিবর্তন ঘটছে। ঠিক সময়ে বৃষ্টিপাত না হওয়া। পর্যাপ্ত পরিমাণে বৃষ্টিপাত না হওয়া ইত্যাদি নানা সমস্যার কারণে প্রভাবিত হচ্ছে পরিবেশের বাস্তুতন্ত্র। তাই জলবায়ুর পরিবর্তনের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে অরণ্যসৃজনে মনোনিবেশ করেছে ইথিওপিয়া। পূর্ব আফ্রিকার এই দেশ একদিনেই রোপণ করেছে প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন গাছ। আনুষ্ঠানিকভাবে বলা হচ্ছে এই বিপুল পরিমাণ বৃক্ষরোপণ করে বিশ্ব রেকর্ড কের ফেলেছে ইথিওপিয়া। 

এই গোটা প্রকল্পটির নেতৃত্ব দিয়েছেন ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যাবি আহমেদ। বিপুল পরিমাণে বৃক্ষচ্ছেদন এবং তার ফলে পরিবেশের পরিবর্তনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতেই এই বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শুধু তাই নয় ইথিওপিয়ার সরকারি কর্মচারীরাও যাতে এই উদ্যোগে সামিল হতে পারে সেইজন্য সেখানকার বহু পাবলিক সেক্টর বন্ধ রাখা হয়েছিল। 

প্রধানমন্ত্রীর এই প্রকল্পটি 'গ্রিন লেগাসি ইনিশিয়েটিভ'-এর অন্তভূক্ত, যা দেশের ১০০০-এরও বেশি সাইটে  অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। যদিও এই প্রকল্পেও খুঁত খুঁজে পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর বিরোধীরা। প্রধানমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে তাঁরা কটাক্ষ করে বলেছেন সাম্প্রতিককালে অঅ্যাবি আহমেদ সরকার যেসব চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে, সেই চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতেই বিভিন্ন ক্যাম্পেইন গঠন করে জনগনের মন ঘোরাতে চেষ্টা করছেন।