ফের কেঁপে উঠল ইরাক। এবার রাজধানী বাগদাদের গ্রিন জোন লক্ষ্য করে চালান হল রকেট হামলা। এই গ্রিন জোনেই রয়েছে মার্কিন সহ অন্যান্য দূতাবাসগুলি।

 রেভেলিউশনারি গার্ডের প্রধান জেনারেল কাশেম সোলেমানির হত্যার বদলা নিতে বুধবার ভোররাতে ইরাকে ২টি মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। তার ২৪ ঘণ্টা পেরোতে না পেরোতে এই রকেট হামলা চালান হল।  গ্রিন জোনে দুটি বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গিয়েছে। 

২টি রকেট হামলার বিকট বস্ফোরণে কেঁপে ওঠে বাগদাদ। সঙ্গে সঙ্গে গ্রিন জোনের সতর্কতামূলক সাইরেন বেজে ওঠে। তবে তাৎক্ষণিক ভাবে এই হামলায় হতাহতের বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।  প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে ইরান এই হামলা চালিয়েছে। 

এদিকে বুধবার ভোররাতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ৮০জন মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে বলে প্রথমে ইরান দাবি করে। যদিও আমেরিকা এই দাবি নাকচ করে দিয়েছে। বুধবার বিবৃতি দিয়ে মার্কিন প্রেসিজেন্ট দাবি করেন, এই হামলায় তেমন কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি, কোনও সেনা সদস্য নিহত হয়নি। 

গত শুক্রবার জেনারেল কাশেম সোলেমানিকে বাগদাদ বিমানবন্দরে হত্যা করে মার্কিন বাহিনী। রকেট হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয় ইরানের সেনাকর্তাকে। যার নির্দেশ দিয়েছিলেন খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তারপর থেকেই বদলার হুঁশিয়ার দিয়ে আসছে ইরান। ক্ষেপণাস্ত্র হামলা সেই বদলা নিতে বলে ইরানের জাতীয় টেলিভিশন চ্যানেলে দাবিও করা হয়েছে। 

সোলেমানি হত্যার পরেই মধ্যপ্রাচ্য থেকে মার্কিন সেনাদের বিতাড়িত করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। আর এই হুমকি ও পাল্টা হুমকিতে ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে দুই দেশএর মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্ক।