পর্যাপ্ত টাকা নেই রাষ্ট্রসংঘের হাতে। ফলত আগামী মাসে কর্মীদের বেতন দেওয়া সম্ভব নাও হতে পারে। এমন আশঙ্কাই প্রকাশ করলেন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস। 

বর্তমানে ২৩ কোটি ডলার অর্থ ঘাটতি রয়েছে রাষ্ট্রসংঘের। নতুন করে অর্থ না এলে অক্টোবরেই শেষ হয়ে যাবে তহবিল। রাষ্ট্রসংঘের ৩৭ হাজার কর্মীর উদ্দেশে লেখা চিঠিতে এমন কথাই জানিয়েছেন মহাসচিব। 

রাষ্ট্রসংঘ চালাতে যে খরচ হয় সদস্য রাষ্ট্রগুলি তার মাত্র ৭০ ভাগ দিয়েছে। ফলে সেপ্টেম্বরের শেষে নগদের ঘাটতি দাঁড়িয়েছে ২৩ কোটি ডলার। তাই এমাসের শেষে নগদ টাকা ফুরিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আর্থিক সংকট সামাল দিতে বন্ধ করা হচ্ছে সেমিনার। কর্তাদের ভ্রমণেও কাটছাঁট করা হচ্ছে। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। এর আগে রাষ্ট্রসংঘের খরচ মেটাতে সদস্য দেশগুলির কাছে আবেদন জানানো হয়েছিল। কিন্তু তেমন সাড়া মেলেনি।  রাষ্ট্রসংঘের খরচের ২২ শতাংশই দেয় আমেরিকা।

অর্থসংকট কাটাতে চলতি বছরের প্রথম দিকেই সদস্য দেশগুলোকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছিলেন গুতেরেস। তবে এই আহ্বানে তেমন সাড়া মেলেনি বলেই দাবি এক কর্মকর্তার। বর্তমানে রাষ্ট্রসংঘের সদস্য বিশ্বের মোট ১৯৩টি দেশ। এর মধ্যে ১২৯টি দেশ এখনও নিজেদের বকেয়া  অর্থ প্রদান করেনি।   চলতি আর্থিক বর্ষে রাষ্ট্রসংঘের জন্য ৫৪০ কোটি ডলার বাজেট বরাদ্দ রয়েছে। এর প্রায় ২২ শতাংশই প্রদান করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।