আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শারজায় ফের ব্যাটসম্যানদের তাণ্ড। পঞ্জাব বনাম রাজস্থান ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে   কর কেএল রাহুলের দল। শতরান করেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। অর্ধশতরান করেন অধিনায়ক কেএল রাহুল।  ২০ ওভার শেষে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব করে  ২২৩  রান। এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন রাজস্থান রয়্যালসের অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। রাজস্থানের হয়ে ওপেনিংয়ে প্রত্যাশা মতোই চার-ছয়ের ঝড় তোলেন কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের দুই ওপেনার কেএল রাহুল ও মায়াঙ্ক আগরওয়াল। প্রথম দুটি ওভার দেখে নেওয়ার পর বিধ্বংসী রূপ নেন দুই ওপেনার। রাজস্থানের প্রতিটি বোলারের কার্যত রাতের ঘুম কেড়ে নেন রাহুল ও মায়াঙ্ক। পাওয়ার প্লের আগেই দুই ওপেনার দলের অর্ধরশতরান পুরো করে ফেলেন। মাঠেপ হেন কোনও দিক নেই যে যেখানো শট খেলেননি ভারতের দুই তারকা ব্যাটসম্যান।

পাওয়ার প্লের পরও নিজেদের তান্ডব বজায় রাখেন কেএল রাহুল ও মায়াঙ্ক আগরও ওয়াল। তবে গত ম্যাচের নায়ক রাহুল এই ম্য়াচে মায়াঙ্কের থেকে কিছুটা ঠান্ডা ছিলেন। নিজের অর্ধশতরাবও রাহুলের আগে এদিন পূরণ করেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ১০ ওভারের আগেই পুরণ করে ফেলেন তাদের একশো রানের পার্টনারশিপও। ১০ ওভার শেষে পঞ্জাবের স্কোর দাঁড়ায় বিনা উইকেটে ১১০। ১২ তম ওভারে নিজের অর্ধশতরানও পূরণ করে ফেলেন কেএল রাহুল। ১২ ওভার শেষে পঞ্জাবের স্কোর দাঁড়ায় ১৩৮। অর্ধশতরান করার পর রানের গতিবেগ আরও বাড়ান দুই তারকা। ১৪ ওভার শেষে পঞ্জাবের স্কোর হয় ১৬১।  ১৫ তম ওভারে নিজের  শতরান পূরণ করেন মায়াঙ্ক আগরওয়াল। মাত্র ৪৫ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। ১৫ ওভার শেষে পঞ্জাবের স্কোর দাঁড়ায় ১৭২। 

অবশেষে ১৭ তম ওভারে আউট হন মায়াঙ্ক আগরওয়াল।  টম কুরানের বলে ১০৬ রান করে আউট হন তিনি। ১৮৩ রানে প্রথম উইকেট পড়ে পঞ্জাবের। ১৭ ওভার শেষে কিংস ইলেভেন স্কোর দাঁড়ায় ১৮৫। এরপর ক্রিজে নেমেই আক্রমণাত্ব শট খেলা শুরু করেন ম্যাক্সওয়েল। ১৮ ওভারের শেষ বলে আউট হন কেএল রাহুল। অঙ্কিত রাজপুতের বলে ৬৯ রান করে আউট হন তিনি। এরপর ক্রিজে আসেন নিকোলাস পুরাণ। তিনি এসেও চালিয়ে ব্য়াট করেন। ১৯ ওভার শেষে পঞ্জাবের স্কোর ২ উইকেটে ২০৫। ২০ তম ওভারেও ব্য়াটিং তাণ্ডব চালান নিকোলাস পুরাণ। ২০ ওভারের শেষ বলেও ছক্কা হাঁকান পুরাণ। পঞ্জাবের স্কোর দাঁড়ায় ২২৩। রাজস্থান রয়্যালসের টার্গেট ২২৪।