আজ আইপিএলে আরও এক মেগা ম্যাচে মুখোমুখি কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে হবে এই ম্যাচ। বর্তমানে ৯ ম্যাচে ৬টি জয়ের সৌজন্যে ১২ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের তৃতীয় স্থানে রয়েছে বিরাট কোহলির দল। অপরদিকে, ৯ ম্যাচে ৫টি জয়ের সৌজন্যে লিগ টেবিলের চতুর্থ স্থানে রয়েছে ইয়ন মর্গ্যানের দল। ফলে আজ জিতে শেষ চারের দিকে আরও এক পা বাড়াতে মরিয়া দুই দলের অধিনায়ক। একইসঙ্গে প্রথম পর্বের হারের বদলা নিতেও মুখিয়ে রয়েছে কেকেআর। ফলে আজ আবুধাবিতে আরও একটি রুদ্ধশ্বাস ম্যাচ দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেট প্রেমিরা।

আরসিবির বিরুদ্ধে নামার আগে কিন্তু যথেষ্ট সাবধানী কেকেআর অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যান। কারণ আরসিবির বিরুদ্ধে প্রথম পর্বে বড় ব্যবধানে হারতে হয়েছিল দলকে। তারপর চতুর্থ স্থানে থাকলেও, ঠিক পেছনেই নাইটদের ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে পঞ্জাব ও রাজস্থান। তাই আজ বিরাট কোহলির দলের বিরুদ্ধে জয় ছাড়া কিছুই ভাবছে না কেকেআর শিবির। শেষ ম্যাচে সুপার ওভারে জয় পেলেও, দলের ধারাবাহিকতা নিয়ে চিন্তায় রয়েছে কেকেআর। কারণ বড় রানের মধ্যে নেই শুভমান গিল, রাহুল ত্রিপাঠী, নিতীশ রানা, ইয়ন মর্গ্যান, দীনেশ কার্তিকরা। একইসঙ্গে আন্দ্রে রাসেল কবে ফর্মে ফিরবে সেই বিষয়টিও ভাবাচ্ছে কেকেআর টিম ম্যানেজমেন্টকে। অপরদিকে গত ম্যাচে লকি ফার্গুসনের দুরন্ত বোলিং ভরসা দিয়েছে দলকে। ছন্দে রয়েছেন প্যাট কামিন্স, বরুণ চক্রবর্তী, শিবম মাভি, কুলদীপ যাদবরা। 

অপরদিকে, এবার আইপিএলে নিজেদের সেরা ফর্মে রয়েছে বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। মাঝে একটি ম্যাচ পঞ্জাবের বিরুদ্ধে হারলেও, রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ফের জয়ে ফিরেছে আরসিবি। ছন্দে রয়েছে দলের ব্যাটিং ও বোলিং বিভাগ। শেষ ম্য়াচেও রাজস্থানের বিরুদ্ধে রান পেয়েছেন দেবদূত পাড়িকল, বিরাট কোহলি, এবি ডিভিলিয়ার্সরা। শুধু মাত্র অ্যারন ফিঞ্চের ধারাবাহিকতার অভাব নিয়ে কিছুটা চিন্তায় রয়েছে আরসিবি টিম ম্যানেজমেন্ট। অপরদিকে বোলিং লাইনআপে দুরন্ত ছন্দে রয়েছে ক্রিস মরিস ও যুজবেন্দ্র চাহল। শেষ ম্যাচেও ৪টি উইকেট পেয়েছেন  মরিস ও ২টি উইকেট পেয়েছেন চাহল। তাদের যোগ্য সঙ্গত দিচ্ছেন ওয়াশিংটন সুন্দর, নবদীপ সাইনি, ইশুরু উদানারা। ফলে কেকেআরের বিরুদ্ধে আজ আবুধাবিতে নামার আগে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী বিরাট কোহলি ব্রিগেড। 

পিচ ও ওয়েদার রিপোর্ট-
আবুধাবির পিচ স্পোর্টিং উইকেট হতে চলেছে। যেখানে ব্যাটসম্যান ও বোলার সকলেই কিছু না কিছু না সুবিধা পাবে। নতুন বলে সুইং পাবেন পেসাররা। স্পিনারদের ক্ষেত্রে একটু অসুবিধা হতে পারে। রান চেজ করার ক্ষেত্রেও খুব একটা সমস্যা হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে। আবুধাবির তাপমাত্রা ৩১ ডিগ্রির আশেপাশে। বজায় থাকবে আদ্রতা জনিত অস্বস্তি।

ম্যাচ প্রেডিকশন-
তবে আবুধাবিতে আরসিবির থেকে বেশি ম্যাচ খেলেছে কেকেআর। পরিস্থিতি সম্পর্কে ওয়াকিবহালও নাইটরা বেশি। তাই ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন এই ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্স জিততে চলেছে।