শনিবার আইপিএলে ফের মাঠে নামছে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে হতে চলেছে এই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে হেরে প্রতিযোগিতা শুরু করলেও, তারপর মাঝে দিল্লির বিরুদ্ধে লড়াই করে হার ছাড়া, তিনটি ম্যাচে দুরন্ত জয় পেয়েছে  দীনেশ কার্তিকের দল। শেষ ম্য়াচে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে ১০ রানে জয় দলের আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বাড়িয়ে তুলেছে কেকেআরের। শুধু ব্যাটসম্যানদের ধারাবাহিকতার অভাব ও রাসেলের একেবারে অফ ফর্ম কিছুটা চিন্তায় রেখেছে নাইট শিবিরকে। তবে রাহুল ত্রিপাঠীকে দললে সুযোগ দেওয়ায় ব্যাটিং শক্তি আরও বেড়েছে ২ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের। পাশাপাশি বোলারদের ফর্ম স্বস্তি দিচ্ছে কিং খানের দলকে। লিগ টেবিলের শেষে থাকা কিংস ইলেভেন পঞ্জাবকে হারানোর বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী কেকেআর।

অপরদিকে এক নয়, দুই নয়, পরপর ৫ ম্যাচ হেরে একেবারে কোণঠাসা হয়ে পড়েছে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দল। কোনও কিছুই যেন সঠিকভাবে হচ্ছে কেএল রাহুলের দলের। প্রতিযোগিতার শুরুতে বড় রান পেলেও,শেষ কয়েকটি ম্যাচে রান পাচ্ছেন না কেএল রাহুল ও মায়াঙ্ক আগরওয়াল জুটি। এছাড়া দলের মিডল অর্ডারে মনদীপ সিম, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, প্রভসিমরন সিংদের ব্যার্থতা চিন্তা বাড়িয়ে তুলেছে কিংসদের। যদিও গত ম্যাচে নিকোলাস পুরান রানে ফেরায় কিছুটা স্বস্তি দিয়েছে কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দললকে। বল হাতে মহম্মদ শামি ও রবি বিষ্ণোই ছাড়া কেউ খুব একটা ভরসা দিতে পারেনি কিংস ইলেভেন পঞ্জাব দলকে।  কোচ অনিল কুম্বলেও চেষ্টা করতেন পঞ্জাব দলকে যেনতেন প্রকারে জয়ের রাস্তায় ফেরাতে। অধিনায়ক কেএল রাহুলও কেকেআরের বিরুদ্ধে জয়ের ফিরতে মরিয়া।

পিচ ও ওয়েদার রিপোর্ট-
স্পোর্টিং উইকেট হতে চলেছে আবুধাবির শেখ জায়েদ স্টেডিয়ামে। পুরোপুরি ব্য়াটসম্যানদের সহাক উইকেটও নয়, অথবা একেবারে বোলিং উইকেটও নয়। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে পিচ কিছুটা স্লো হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে। সেক্ষেত্রে স্পিনাররা একটু সুবিধা পেতে পারেন। আবুধাবির তাপমাত্রা থাকবে ৩৩ ডিগ্রির আশেপাশে। বজায় থাকবে আদ্রতা জনিত অস্বস্তিও। 

ম্য়াচ প্রেডিকশন-
দুই দলেই রয়েছে একাধিক ম্যাচ উইনার। কিন্তু ক্রিকেট বিশেষজ্ঞদের মতে, টানা ৫ ম্য়াচ হেরে লিগ টেবিলের একেবারে নিচে রয়েছে পঞ্জাব। আত্মবিশ্বাসও তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। অপরদিকে কেকেআরের আত্মবিশ্বাস অনেক ভাল জায়গায় রয়েছে। তাই দুই সাম্প্রতিক ফর্ম ও শক্তি বিচার করে এই ম্য়াচ কেকেআর জিততে চলেছে বলেই মনে করছেন সকলে।