আগেকার দিনে যে কোনও অনুষ্ঠান বাড়িতেই কলা পাতায় খাওয়ানোর চল ছিল। এখন প্রায় কোনও অনুষ্ঠান বাড়িতেই তা চোখে পড়ে না। একাধিক গবেষনায় দেখা গেছে, কলা পাতায় খাবার খেলে শরীরের বহু সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব হয়েছে। শুধু এই নয় কলাপাতা পরিবেশ বান্ধব। আর কলা পাতায় খাবার সবচেয়ে লাভজনক। যদি এই গাছের যোগান থাকে। 

আরও পড়ুন- আবহাওয়া বদলের এই সময়ে বাড়ছে সর্দি কাশি জ্বর, জেনে নিন কী করবেন

গবেষকদের মতে, কলাপাতায় রয়েছে এক ধরনের পলিফেলন জাতীয় উপাদান যা খাবার সময় আমাদের শরীরে প্রবেশ করে। এই পলিফেলন হল এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়াও কলা পাতায় রয়েছে লিগনিন, হেমিসেলুলোস, প্রোটিন এবং অ্যালোয়েনটাইন নামক উপাদান। যেগুলি শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এই পাতার রয়েছে আরও বহু গুণ। জেনে নিন এই পাতায় খাওয়ার উপকারীতা-

 

আরও পড়ুন- বাজারের কেনা নয়, ভরসা রাখুন বাড়ির তৈরি স্ক্রাবারে

শুনতে অবাক লাগলেও এটা সত্যি যে, কলাপাতায় নিয়মিত খাবার খেলে তা ত্বককে ভিতর থেকে সুস্থ রাখে। কারন এই পাতার মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীর থেকে টক্সিক বেড়িয়ে যেতে সাহায্য় করে। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে আরও বেশি উজ্জ্বল এবং সতেজ। কেরলার বহু মানুষ অয়ুর্বেদিক ত্বক পরিচর্যার ক্ষেত্রে কলা পাতার ব্যবহার করেন।

আরও পড়ুন- এই মরশুমে টম্যাটোর সাহায্যে ত্বক করে তুলুন দিপ্তীময় ও আকর্ষনীয়

কলা পাতায় থাকা অ্যালোয়েনটাইন ও পলিফেনল নামক দুটি উপাদান পেটের যে কোনও ধরনের রোগ সারাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। শুধু এই নয় এমনকি ইন্টস্টাইন ব্লিডিং সহ স্টামাক পেনে-এর মত সমস্য়াও কমাতে সাহায্য করে। এই সঙ্গে খাবার হজমেও সাহায্য করে কলাপাতায় থাকা উপাদানগুলি। 

জ্বরের প্রকোপ কমাতেও সাহায্য করে কলাপাতায় থাকা উপাদানগুলি । তবে অবশ্যই কলাপাতায় খাবার সময় পাতার দুই পাশ খুবই ভালো করে পরিস্কার করে নিতে হবে। কলাপাতায় থাকা উপাদানগুলি শরীরে ইমিউনিটি পাওয়ার বৃদ্ধি করে ফলে ভাইরাস ঘটিত যে কোনও রোগের প্রকোপ থেকে দ্রুত মুক্তি পাওয়া সম্ভব হয়। তাই স্বাভাবিক ভাবে শরীর সুস্থ রাখতে আজ থেকে কলাপাতায় খাওয়া শুরু করুন।