চলতি বছরের শুরুতে রাজ্য সরকারের সেক্রেটরিয়েট, ডিরেক্টরেট, জেলা অফিসার ও অন্যান্য আঞ্চলিক অফিসে লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক পদের জন্য দরখাস্ত নেওয়া হয়েছিল। তথ্য অনুযায়ী এই পরীক্ষা নেওয়ার কথা ছিল পশ্চিমবঙ্গ পাব্লিক সার্ভিক কমিশন-এর। এই বিষয়ে বহু তর্ক-বিতর্কের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় এই পরীক্ষার দায়িত্ব নিয়েছে পি.এস.সি.।  জানা গিয়েছে এই পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে জানুয়ারী মাসের শেষের দিকেই। সেই মত চলছে প্রস্তুতিও।

আরও পড়ুন- স্ক্যাল্প ইনফেকশনে ভুগছেন, উপকার পাবেন ঘরোয়া উপাদানেই

২০১৯ সালের এই ক্লার্কশিপ পরীক্ষা হবে দুটি হাফে। যাতে প্রথম পার্টে থাকবে ১০০ নম্বরে অবজেক্টিভ মাল্টিপল চয়েজের প্রশ্নপত্র। এই  অবজেক্টিভ মাল্টিপল চয়েজের তালিকায় থাকবে ৩০ নম্বরের ইংরেজি, ৪০ নম্বর জেনারেল স্টাডিজ, ৩০ নম্বরের অ্যারিথমেটিক। পরীক্ষার সময় থাকবে দেড় ঘন্টা। দ্বিতীয় পার্টে থাকবে ডেসক্রিপ্টিভ টাইপের ৫০ নম্বরের ইংরেজি, ৫০ নম্বরের বাংলা/ হিন্দি/ নেপালী/ উর্দু / সাঁন্তাড়। সময় থাকবে ১ ঘন্টা। প্রথম ও দ্বিতীয় পার্টের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে তবে পরবর্তী ধাপের জন্য ডাকা হবে।  

আরও পড়ুন- জিমেইল-এর নতুন সংস্করণ, আরও সহজ হল মেইল করা

উত্তর কলকাতা, দক্ষিণ কলকাতা, বারুইপুর, ডায়মন্ডহারবার, ব্যারাকপুর, বারাসাত, কৃষ্ণনগর, হাওড়া, চুঁচুড়া, বর্ধমান, আসানসোল, পুরুলিয়া, মেদিনীপুর, তমলুক, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, সিউড়ি, বহরামপুর, মালদা, বালুরঘাট, রায়গঞ্জ, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, শিলিগুড়ি, কালিম্পং, দার্জিলিং এইসব কেন্দ্রে ২০১৯ সালের এই ক্লার্কশিপ পরীক্ষা হবে। এর মধ্যে দার্জিলিং কেন্দ্রটি শুধুমাত্র দার্জিলিং জেলার পার্বত্য আদিবাসী ও দার্জিলিং সদর, কার্শিয়াঙ ও কালিম্পং মহকুমার প্রার্থীদের জন্য।