আগামী ১৮ ই ফেব্রুয়ারি থেকে রাজ্যজুড়ে শুরু হচ্ছে মাধ্যমিক পরীক্ষা । বিগত বছরগুলোর বিভিন্ন ত্রুটির অভিজ্ঞতা থেকে আগাম বৈঠক পর্ষদ কর্তাদের। জঙ্গলমহলের জেলাগুলি ঘুরে প্রাথমিক প্রস্তুতি বৈঠক শুরু করলেন পর্ষদ সভাপতি ও আধিকারিকরা। বুধবার বৈঠক করেছেন ঝাড়গ্রাম জেলাতে। জঙ্গলমহলের বাকি জেলাগুলিতেও চলতি সপ্তাহেই বৈঠক হবে বলে জানা গিয়েছে।

বুধবার ঝাড়গ্রাম জেলার জেলাশাসকের দপ্তরে বৈঠক করেন রাজ্যের মাধ্যমিক পর্ষদ সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়।জেলার শিক্ষা দপ্তর আধিকারিক ছাড়াও স্বাস্থ্য দপ্তর ও প্রশাসনের কর্তারা উপস্থিত ছিলেন বৈঠকে। প্রতিটি জেলাতেই অনুরূপ বৈঠক শুরু হয়েছে। বৈঠকে ছাত্র-ছাত্রীদের নিরাপত্তার বিষয়ে জোর দেওয়া হয়েছে জঙ্গলমহলে।

ঝাড়গ্রাম জেলার রাস্তাগুলোতে সবথেকে বড় সমস্যা পরীক্ষার সময় যানজট। যার অন্যতম কারণ প্রচুর পরিমাণে বালি গাড়ি। বিগত বছরগুলোর তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে এবার সেই পরিস্থিতি কাটানোর উদ্যোগ নিলেন সভাপতি। পর্ষদ সভাপতি প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করেছেন-পরীক্ষার সময় যানজট নিরসনে বন্ধ রাখতে হবে সমস্ত প্রকার বালি গাড়ি।

বালি গাড়ি চালাও প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো বিপত্তি এড়াতে এবার প্রশ্নপত্রের বান্ডিলে বিশেষ বারকোড ব্যবহার করা হবে। অন্যান্যবার স্ট্রং রুমে প্রশ্নপত্র খুলে ছাত্র-ছাত্রীদের বিলি করা হতো। এবারে ছাত্র-ছাত্রীদের সামনেই পরীক্ষার হলে প্রশ্নপত্রের বান্ডিল খোলা হবে। পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা কোন শিক্ষকই মোবাইল ব্যবহার করতে পারবেন না।

কোনও ছাত্র-ছাত্রী মোবাইল ব্যবহার করলে সঙ্গে সঙ্গে পরীক্ষা বাতিল করতে হবে। একমাত্র পরীক্ষার দায়িত্বে থাকা ৫ জন জেলা আধিকারিক মোবাইল ব্যবহারের অনুমতি পাবে। স্বাস্থ্য দপ্তর প্রতিটি পরীক্ষা কেন্দ্রে অ্যাম্বুলেন্স ও চিকিৎসক মজুত রাখবেন।

ঝাড়গ্রামের জেলাশাসক আয়েশা রানি জানিয়েছেন-পরীক্ষার সময় বালি বহনকারী গাড়ি গুলি পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। যানবাহন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে পরীক্ষার পুরো সময়টাতেই।