লকআউট চলাকালীন, বাড়ি থেকে কাজ করার সময় ঘর বন্দি থাকা দম্পতিদের মধ্যে ক্রমাগত ঘটতে থাকা নানান ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। স্বামী এবং স্ত্রী উভয়ই আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে পারেন যে কোনও সমস্যার। কেবলমাত্র সম্পর্ককে সঠিক ভাবে দেওয়া সময় ও গুরুত্ব আপনার সম্পর্কের ফাটলকে কমাতে পারে। 

কখনও কখনও আমরা আশা করি আমাদের সঙ্গী আমাদের মনের কথার আসল অর্থটি বুঝতে পারবে। এই চিন্তাভাবনার উপর নির্ভর করে বা এটি সত্যই হবে এমন ধরে নেওয়াটা ঠিক নয়। এটি ভাবার পরিবর্তে আপনার চিন্তা তার সামনে সরাসরি রাখার চেষ্টা করুন। যখন আপনার কিছু বলার থাকে, তখন সে আপনাকে বুঝে নেবে তার অপেক্ষা না করে, সরাসরি মনে কথা বা সমস্যার কথা খুলে বলুন। তিনি যদি বুঝতে পারতেন তবে পুরো সমস্যার সমাধান হয়ে যেতে পারে। 

কোনও বিশেষ পরিস্থিতিতে আপনার সঙ্গীর মনোভাব কী হবে তা জানতে, আপনাকে তার জায়গায় রেখে একইভাবে চিন্তা করতে হবে। এছাড়াও সচেতন থাকুন, যে এমন কিছু জিনিস থাকতে পারে যা সম্পর্কে আপনি কিছু জানেন না। তিনি যখন কথা বলছেন, তার দৃষ্টিকোণ থেকে একবারও চিন্তা করার চেষ্টা করুন। এর ফলে আপনার আচরণ বা পরিস্থিতি সঙ্গীকে কতটা বিরক্ত করছে এবং কেন তা বুঝতে আপনার পক্ষে সহজ হবে? 

আপনার সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলার অর্থ এই নয় যে, আপনি রেগে রেগে কথা বলবেন। এই পরিস্থিতিতে যতটা সম্ভব, নিখুঁতভাবে বন্ধুত্বপূর্ণ হয়ে আপনার আত্মবিশ্বাস দেখান। সম্পর্কে বা সংসারের যে সমস্যা দেখা দিয়েছে কা সাবধানের কথা বলুন। এই সমস্ত কথা বলতে কিছুতেই দ্বিধা করবেন না। যদি আপনার সঙ্গীকে আপনার অনুভূতি সম্পর্কে বোঝাতেই না পারেন, তবে তিনি আপনার কথাগুলি গুরুত্ব সহকারে কিভাবে গ্রহণ করবেন। আপনার কান্নাকাটি করাও এড়ানো উচিৎ এই সময়। এটি সম্পর্কের মধ্যে আরও বিভ্রান্তির সৃষ্টি করতে পারে।