Asianet News BanglaAsianet News Bangla

৯/১১ হামলার ২১ বছর, মার্কিন মাটিতে সবচেয়ে মারাত্মক হামলা সম্পর্কে এই তথ্যগুলি জানেন?

আল-কায়দা জঙ্গি গোষ্ঠীর বিমান হানায় গুঁড়িয়ে গিয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ার। এই হামলা মার্কিন রাজনীতিকে বদলে দেওয়ার পাশাপাশি বিশ্বরাজনীতিও বদলে দিয়েছিল। ছিনতাই করা বিমানগুলির মধ্যে দুটি নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের টুইন টাওয়ারে ধাক্কা মারে।

21 Years of 9/11-Know These Facts About the Deadliest Attacks on US Soil  bpsb
Author
First Published Sep 11, 2022, 1:53 PM IST

নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের টুইন টাওয়ারে ১১ সেপ্টেম্বরের হামলা, যা ৯/১১ হামলা নামেও পরিচিত, আধুনিক সভ্যতার ইতিহাসে সবচেয়ে মারাত্মক জঙ্গি হামলা। হামলার ফলে হাজার হাজার মানুষ মারা যায়, এবং লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবনের জন্য পঙ্গু হয়ে পড়েন। ইসলামি চরমপন্থী গোষ্ঠী আল-কায়েদার উনিশ জন জঙ্গি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন জায়গায় হামলা চালানোর জন্য চারটি বাণিজ্যিক বিমান হাইজ্যাক করে।

আল-কায়দা জঙ্গি গোষ্ঠীর বিমান হানায় গুঁড়িয়ে গিয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ার। এই হামলা মার্কিন রাজনীতিকে বদলে দেওয়ার পাশাপাশি বিশ্বরাজনীতিও বদলে দিয়েছিল। ছিনতাই করা বিমানগুলির মধ্যে দুটি নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের টুইন টাওয়ারে ধাক্কা মারে। হামলাকারীরা প্রথমে সকাল ৮টা ৪৬ মিনিটে WTC এর উত্তর টাওয়ারের ৯৩ এবং ৯৯ নম্বর তলায় ধাক্কা মারে। কেউ কিছু বুঝতে পারার আগেই, দ্বিতীয় বিমানটি WTC-এর দক্ষিণ টাওয়ারে আঘাত হানে ঠিক ১৭মিনিট পরে, সকাল নটা বেজে তিন মিনিটে। 

21 Years of 9/11-Know These Facts About the Deadliest Attacks on US Soil  bpsb

যখন টাওয়ারগুলি আঘাত করা হয়েছিল, তখন ১৬ থেকে ১৮ হাজার লোক WTC কমপ্লেক্সে ছিল। তৃতীয় বিমানটি ইচ্ছাকৃতভাবে ভার্জিনিয়ার আর্লিংটনের পেন্টাগনে ধাক্কা মেরেছিল। একটি গবেষণা বলছেন হামলার কুড়ি বছর আগের হামলার ক্ষতি এখনও বহন করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। হামলার কারণে বিষাক্ত হয়েছে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার বা বর্তমানে গ্রাউন্ড জিরোর বাতাস। যার থেকে অধিকাংশ মানুষের ক্যান্সার হচ্ছে। মানসিক রোগেও ভুগছে। আগের তিনটি হামলা সম্পর্কে জানার পর, চতুর্থ হাইজ্যাক হওয়া বিমানের যাত্রীরা পাল্টা লড়াই করে এবং প্লেনটি শেষ পর্যন্ত পশ্চিম পেনসিলভানিয়ার একটি খালি মাঠে ভেঙে পড়ে। 

৯/১১ হামলায় ৯৩টি দেশের ২৯৭৭ জন নিহত হয়েছিল। এর মধ্যে নিউইয়র্কে টুইন টাওয়ার হামলায় ২৭৫৩ জন এবং পেন্টাগনে ১৮৪ জন নিহত হয়েছিল; এবং ফ্লাইট ৯৩-এ ৪০ জন নিহত হয়েছিল।

৯/১১ হামলার পরিকল্পনা আল-কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেন এবং তার সহযোগীদের মস্তিষ্কপ্রসূত ছিল। হামলায় জড়িত ১৯ জন জঙ্গির মধ্যে ১৫ জন সৌদি আরবের, দুজন সংযুক্ত আরব আমিরাতের, একজন লেবাননের এবং একজন মিশরের বাসিন্দা।

৯/১১ হামলার পর, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে একটি স্ট্রাইক শুরু করে এবং আল-কায়েদা এবং এই জাতীয় অন্যান্য সংগঠনের বেশ কয়েকটি অবস্থানকে নিরপেক্ষ করার জন্য বেশ কয়েকটি অভিযান পরিচালনা করে। মার্কিন সংস্থাগুলি অবশেষে ২০১১ সালে পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদে তার অবস্থানে একটি সামরিক অভিযানে ওসামা বিন লাদেনকে হত্যা করতে সক্ষম হয়েছিল।

এই বছরের আগস্টে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৯/১১ হামলার ষড়যন্ত্রের আরেক গুরুত্বপূর্ণ সদস্য আয়মান আল-জাওয়াহিরিকে হত্যা করে। মার্কিন সংস্থা আফগানিস্তানে ড্রোন হামলায় আল-কায়েদা নেতাকে খতম করে। পেনসিলভেনিয়ার শ্যাঙ্কসভিলায় ফ্লাইট ৯৩ বিধ্বস্ত মাঠটি এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশানাল পার্ক সার্ভিসের অধীনে রয়েছে। এটি ফ্লাইট ৯৩ জাতীয় স্মৃতিসৌধে পরিণত হয়েছে এখন। হামলার নিহতদের প্রতি এখনও এখানে অনেকেই শ্রদ্ধা জানান। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios