বিশ্বব্যপী দুরন্ত গতিতে ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণ। সকলের মনে একটাই প্রশ্ন কীভাবে ঠেকানো যাবে একে? ধরুন জানা গেল, লাগাতার যৌনতায় মেতে থাকলে করোনাভাইরাস কিচ্ছুটি করতে পারবে না। এমন সমাধান কে না চায়? কিন্তু, এও কি সত্যি? আসলে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সঙ্গেই পাল্লা দিয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে অদ্ভূত অদ্ভূত সব গুজব। কিন্তু, প্রথম সারির মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন কি এই ধরণের ভুয়ো খবর বা ফেক নিউজ প্রচার করবে?

আজ্ঞে হ্যাঁ, সিএনএন-এর সংবাদ সম্প্রচারের এমনই একটি স্ক্রিনশট সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেটি শেয়ার করেছেন বিশ্বখ্যাত ব়্যাপ সঙ্গীত শিল্পী ফিফটি সেন্ট। কার্টিস জেমস জ্যাকসন থ্রি বা ফিফটি সেন্ট সম্প্রতি তাঁর অফিসিয়াল সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে সিএনএন-এর একটি সংবাদ পরিবেশনের স্ক্রিনশট ভাগ করে নিয়েছেন। সেখানে মার্কিন সংবাদ চ্যানেলটির পরিচিত সংবাদ পরিবেশক উলফ ব্লিতজার-কে দেখা যাচ্ছে। আর নিজের স্ক্রোল অংশে লেখা 'কনস্ট্যান্ট  সেক্স কিলস করোনাভাইরাস'। এই স্ক্রিনশটটি শেয়ার করে ফিফটি সেন্ট ক্যাপশনে লেখেন, 'বেশ, তাহলে আমরা সুস্থই থাকব'।

এখন প্রথম প্রশ্ন হল সত্যিই কি লাগাতার যৌনতায় করোনাভাইরাস খতম হয়? উত্তর হল, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর এইরকম উদ্ভট কোনও সমাধানের কথা গবেষকরা কখনই জানাননি। যেমন গোমূত্র পান করা বা আমিষ খাওয়া বন্ধ রাখাও বিজ্ঞানসম্মত নয়, তেমনই কোভিড-১৯'এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে লাগাতার যৌনতার কোনও বৈজ্ঞানিক সমর্থন নেই।

দ্বিতীয় প্রশ্ন, সিএনএন'এর ওই স্ক্রিনশট'টি কি ভুয়ো? উত্তর, একেবারে ভুয়ো। ওই মার্কিন সংবাদমাধ্যমের ওয়েবসাইট তন্ন তন্ন করে খুঁজে কোথাও এমন কোনও খবর পাওয়া যাচ্ছে না। দ্বিতীয়ত, সিএনএন সাধারণত যে ফন্ট ব্যবহার করে থাকে, ভাইরাল হওয়া স্ক্রিনশটের লেখার ফন্ট তার সঙ্গে মিলছে না। আর তৃতীয়ত এই একই ছবির সঙ্গে অন্য লেখা ব্যবহার করে এর আগেও ভুয়ো খবরের চাঞ্চল্য তৈরি করা হয়েছিল। এমনকী, মদ খেলে কোভিড-১৯ সেরে যায়, এমন খবরও রটানো হয়েছিল এই একই ছবি ব্যবহার করে। শুধু নিচের লেখাটা অন্য ছিল।

ফিফটি সেন্ট-এর মতো বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পীর ভক্তের সঙ্গে কয়েক কোটি। তিনি মজা করে এই ভুয়ো খবর পোস্ট করে থাকলেও এতে অনেকেই বিভ্রান্ত হতে পারেন বলে মনে করছেন নেটিজেনরা। বিশেষ করে কোভিড-১৯ রোগের প্রাদুর্ভাব নিয়ে বিশ্বজুড়ে যেরকম আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয়েছে তাতে এই ধরণের রসিকতার আগে আরও সতর্কতার দরকার বলে মনে করছেন তাঁরা।য তবে ফিফটি সেন্ট-এর ভক্তকূল-এর দাবি, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও তার জেরে বিশ্বজুড়ে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, সেই হতাশার মধ্যে তিনি পরিবেশটা একটু হাল্কা করতে চেয়েছেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের হুমকিকে অবশ্য আর হাল্কাভাবে নিতে পারছে না দুনিয়া। ইতিমধ্যেই একে বিশ্বব্যপী মহামারী হিসাবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বর্তমানে এই রোগে সারা বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ৭০০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১,৮৪,০৩৭ জন। তবে সেরেও উঠেছেন ৭৯,৮২৭ জন। গত কয়েকদিনে একেবারে লাফিয়ে লাফিয়ে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যাটা বেড়ে চলেছে।