কলঙ্কের দাগ লাগল 'হাউডি মোদী' অনুষ্ঠানে। হিউস্টনের এনআরজি স্টেডিয়ামের অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হল না ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন সাংবাদিক তথা স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান হাসান মিনহাজকে। আর সেই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে জানা গেল শুধু মিনহাজ নয়, তাঁর মতো অনেক মুসলিম সাংবাদিককেই হাউডি মোদী অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।

গত রবিবার হিউস্ডটনের এনআরজি স্টেডিয়ামে ঢোকার মুখে পুরো শুটিং টিম-সহ আটকানো হয় হাসানকে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে ফোনে এক কর্মকর্তাকে হাসান জানাচ্ছেন ভিতরে যাওয়ার ক্রেডেনশিয়াল বা পরিচয়পত্রের খোঁজ করছেন তাঁরা। ওই কর্মকর্তা জানান, হাসানের জন্য কোনও ক্রেডেনশিয়াল নেই।  

সামনের টেবিলেই কিন্তু বেশ কিছু পরিচয়পত্র রাখা ছিল। হাসান তা জানালে কর্মকর্তা বলেন, একজন সাংবাদিকই ভিতরে যেতে পারবেন। আর কাউকে ভিতরে যেতে দেওয়া যাবে না। অথচ, ভিডিও-র পরের অংশে দেখা যায়, সাংবাদিকদের জন্য নির্দিষ্ট জায়গা অর্ধেকই ফাঁকা রয়েছে।

ভিডিও-র পরের অংশটি বেশ বিতর্কিত। নেটফ্লিক্সে হাসান 'প্যাট্রিয়ট অ্যাক্ট' বলে একটি কমেডি অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করে থাকেন। গত ১৭ মার্চ ভারতের লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন, তিনি নরেন্দ্র মোদীকে কটাক্ষ করেছিলেন। যা নিয়ে নেটিজেনদের ট্রোলিং-এর শিকার হতে হয়েছিল তাঁকে। ভিডিও-র পরের অংশে এক কর্মকর্তাকে উদ্দেশ্য করে হাসানকে জিজ্ঞেস করেন, ওই মজা করার জন্যই কি তাঁকে ভিতরে যেতে দেওয়া হল না? ওই কর্মকর্তা তা অস্বীকার করলেও হাসান বলেন, ওই জোক যে অনেকেরই পছন্দ হয়নি তা তিনি জানেন।

ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পর আরেক মার্কিন সাংবাদিক মারিয়া ক্যারি ভিডিওটি রিপোস্ট করে জানান, তিনিই একমাত্র মুসলিম সাংবাদিক নন, যাঁকে অনুষ্ঠানস্থলে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।