প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার পর এবার বর্ণবিদ্বেষের শিকার হলেন ভারতীয় বংশোদ্ভুত মার্কিন সেনেটার কমলা হ্যারিস। ভোট পরিস্থিতিতে সোশ্যাল মিডিয়ায় গায়ের রঙ নিয়ে প্রশ্নের মুখে কমলা। প্রসঙ্গত,এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প-এর পক্ষ থেকেও এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছিল বারাক ওবামাকে। 

আর এবার আবারও একই বিষয়ে আক্রমণের শিকার হতে হল ৫৪ বছরের কমলা হ্যারিসকে। সবথেকে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, তাঁর বিরুদ্ধে হওয়া বর্ণবিদ্বেষ-এর বিষয়টিকে সমর্থন করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পুত্র জুনিয়ার ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও পরে থেকে চাপের মুখে পড়ে টুইটটি সরাতে বাধ্য হন তিনি। প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার একটি বিতর্কসভায় দেশের প্রাক্তন ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে বর্ণবিদ্বেষ প্রসঙ্গে মন্তব্য করেছিলেন হ্য়ারিস। আর এবার সেই বিষয়টাই যেন ফিরে এল তাঁরই দিকে। 

সূত্রের খবর, আলি আলেকজান্ডার নামে এক ডানপন্থী নেতা সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন যে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হ্যারিস 'মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ' নন। এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট-এর দৌড়ে তিনি 'অযোগ্য' বলেও মন্তব্য করা হয়। আর এই প্রসঙ্গে তাঁকে ঘিরে সুর চড়াতে শুরু করেন নেটিজেনরা। তাঁর বিরুদ্ধে আরও অভিযোগ ওঠে, ভোটের বাজারে সুযোগ নেওয়ার জন্যই মার্কিন কৃষ্ণাঙ্গ বলে প্রমাণ করার চেষ্টা করছেন। আদত নাকি তিনি তা নন। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই বর্ণবিদ্বেষ প্রথনবার নয়, এর আগেও বিভিন্ন সময়ে আক্রন্ত হয়ে হয়েছে বিভিন্নজনকে। অনেকে আবার এও মনে করছেন এই আক্রমণের জবাব দেওয়া উচিত তাঁর।