গুপ্তচর নিয়ে চিরদিনই মানুষের অমোঘ আকর্ষণ রয়েছে। গল্প-উপন্যাস থেকে ফিল্মের পর্দা, সব জায়গাতেই তাদের দারুণ কদর। নিজেদের আসল পরিচয় গোপন করে বিদেশ বিভুঁই-এ সেখানকার নাগরিকদের মধ্যে মসৃণভাবে মিশে যেতে পারে তারা। কাজেই তাঁদের সনাক্ত করা খুবই কঠিন। এবার তাঁদের চিহ্নিত করার জন্য একটি বিশেষ সফ্টওয়্যার বানালো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।   

গুপ্তচররা ধরে পড়লে হয় তাদের হত্যা করা হয়, অথবা গ্রেফতার করে জেলে বন্দি করা হয়। পশ্চিমী দেশগুলিতে, বেশ কয়েকদিন আগে থেকেই সন্দেহভাজন বা শত্রু দেশের গুপ্তচরদের সফ্টওয়্যার দিয়ে সনাক্ত করার কাজ শুরু হয়েছিল। তবে এতে অনেক ভুল-ভ্রান্তি ছিল। তাই এই ব্যবস্থা কোনওদিনই পুরোপুরি কার্যকর করা হয়নি। তবে সম্প্রতি মার্কিন য়ুক্তরাষ্ট্রের স্পেশাল অপারেশন কমান্ড বা এসওসি একটি নতুন সফ্টওয়্যার সিস্টেম ব্যবহার শুরু করেছে, যা ২০০ মিটার এলাকার মধ্যে থাকা সন্দেহভাজন বা গুপ্তচরদের নিখুঁতভাবে চিহ্নিত করবে বলে দাবি করা হচ্ছে।

'জেটসন' নামে এই নতুন সিস্টেমটি তৈরি করেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের এজেন্সি কম্ব্যাটিং টেররিজম টেকনিক্যাল সাপোর্ট অফিস বা সিটিটিএসও। আর সফ্টওয়্যারটির নির্মাতা 'আইডিয়াল ইনোভেশনস' এই সফ্টওয়্যারের নাম দিয়েছে 'হার্টপ্রিন্ট'। কারণ সন্দেহভাজনদের হৃদস্পন্দনের গতিবিধি উপর ভিত্তি করেই তাদের চিহ্নিত করে এই সফ্টওয়্যার। এর জন্য, একটি লেজার ভাইব্রোমিটার যন্ত্র ব্যবহার করা হচ্ছে। এই লেজার বিম, মানুষের সামান্যতম নড়াচড়াও সনাক্ত করতে পারে। আর এই লেজার বিমগুলি ইনফ্রারেড হওয়ার কারণে সাধারণভাবে চোখে দেখা সম্ভব নয়।

তবে এর কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। যদি কোনও সন্দেহভাজন চলমান গাড়িতে চলাচল করে বা দৌড়াদৌড়ি করে, তখন 'হার্টপ্রিন্ট'-এর পক্ষে তাকে সনাক্ত করা কিছুটা কঠিন হয়ে পড়ে। কিন্তু, ওই ব্যক্তিটি যদি এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকে, তাহলে এর লেজার বিম ৩০ সেকেন্ডের মধ্যে সন্দেহভাজনকে সহজেই সনাক্ত করতে পারে।