তিন দিনের সফরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র গিয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেই সফর শেষেই বড় ঘোষণা করল মার্কিন প্রশাসন। ট্রাম্প সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, যুদ্ধবিমান এফ-১৬-র প্রযুক্তিতে  সাহায্য করা হবে পাকিস্তানকে। পাশাপাশি আরও নানাক্ষেত্রে পাকিস্তানকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। 

পেন্টাগন সূত্রে খবর, সামরিক বিক্রয় খাতে ১২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করার সিদ্ধান্তে সিলমোহর দিয়ে দিয়েছে ট্রাম্প সরকার। বিষয়টি জানানো হয়েছে মার্কিন কংগ্রেসকেও। আর এর ফলেই পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধ বিমানের প্রযুক্তিগত নজরদারি চালানো যাবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সাল থেকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে নিরাপত্তাখাতে সাহায্যের বিষয়ে যে স্থগিতাদেশ জারি করা হয়েছিল, তা এখনও বহাল রাখা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিদেশ দফতর সূত্রে জানানো হয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্টের কথা মতোই যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, সেক্ষেত্রে দু'দেশের মধ্যএকার সম্পর্কের কথা মাথায় রেখেই পাকিস্তানকে নিরাপত্তাখাতে কিছু সাহায্য করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

প্রসঙ্গত বালাকোটে এয়ারস্ট্রাইকের পর ভারতের বিরুদ্ধে এফ-১৬ যুদ্ধবিমান ব্যবহার করেছিল পাকিস্তান। ভারত-পাক সম্পর্কের চাপানউতোরের মধ্যে ট্রাম্প সরকারের এই সিদ্ধান্তে কপালে ভাঁজ পড়েছে বিশেষজ্ঞ মহলের। যদিও মার্কিন মুলুকের তরফে দাবি করা হয়েছে, এর ফলে উপমহাদেশে সামরিক সাম্য বিনষ্ট হবে না।  

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী হিসাবে এই প্রথমবার মার্কিন সফরে গিয়েছিলেন ইমরান খান। এর আগে এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের প্রযুক্তিগত সাহায্য চালিয়ে যাওয়া নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে একাধিকবার অনুরোধ করেছে পাকিস্তান। এবারের মার্কিন সফরে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকে আবারও উঠে আসে এই প্রসঙ্গ।  আর এরপরই এই সিদ্ধান্ত নিল ট্রাম্প প্রশাসন।