মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বিডেন। ভারতীয় সময় শুক্রবার রাতে জো হোয়াইট হাউস দখলের ম্যাজিক ফিগার অর্থাৎ ২৭০ অতিক্রম করেছেন।  তারপরেও কেটে গেছে দীর্ঘ সময়। কিন্তু এখনও পর্যন্ত হার স্বীকার করতে রাজিনন বিপাব্লিক প্রার্থী  ডোনাল্ড ট্রাম্প। রবিবারও তিনি নির্বাচনী গণনায় কারচুপির অভিযোগ তুলে একের পর এক ট্যুইট করেছেন। মার্কিন সংবাদ সংস্থা সূত্রের খবর এবার বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করতে চলেছে ফার্স্টলেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। স্বামীকে উপদেষ্টাসহ পরিবারের সদস্যদের পরামর্শ নেওয়ার কথা বলেছেন তিনি। একটি সূত্রের খবর ট্রাম্পের উপদেষ্টা ও স্ত্রী সকলেই চাইছেন তিনি যেন এবার বিডেনের কাথে হার স্বীকার করে নেন।  

মেলানিয়া ট্রাম্প সাচারচর রাজনীতি থেকে কিছুটা দূরে দূরেই থাকেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর প্রথম দিকে ট্রাম্পের পাশে মূলত দেখা যেত তাঁর মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে। কিছুটা পরেই মেলানিয়াকে দেখা যেতে লাগল সরকারি অনুষ্ঠানগুলিতে। তেমনই রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ফলপ্রকাশ নিয়েও তেমন উত্তেজিত হয়ে দেখা যায়নি তাঁকে। তবে তিনি ট্রাম্পের সুরে সুর মিলিয়ে বলেছিলেন, আমেরিকানরা সুষ্ঠু নির্বাচন চায়। প্রতিটি আইনিভোট  গণনা করা উচিৎ। বেআইনিভোটগুলি বাতিল করে দেওয়াই শ্রেয় বলে মন্তব্য করেন। পাশাপাশি তিনি বলেন সম্পূর্ণ স্বচ্ছতার সঙ্গে দেশের গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হবে।

কিন্তু মার্কিন সংবাদ সংস্থা সূত্রে খবর এবার ফার্স্ট লেডি চাইছেন তাঁর স্বামী যেন এবার জো বিডনের কাছে হার মেনে নেয়। আর তিনি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে সেই পরামর্শও দিয়েছেন। তিনি বলেছেন,   সম্মানজন অবস্থায় হোয়াইটহাউস থেকে বিদায় নেওয়ার কথাও তিনি নাকি বলেছেন।একই সুর শোনা গেছে ইভাঙ্কার স্বামী তথা ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপদেষ্টা জ্যারেড কুশনারের গলাতেও। স্ত্রী আর জামাই দুজনেই ভোটের ফল মেনে নেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন ট্রাম্পের কাছে। তবে এই বিষয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি ট্রাম্প। অন্যদিকে জয়ী ২৭৯ ইলেক্ট্রোরাল ভোট পেয়েও এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনও প্রতিক্রিয়া জানাননি জো বিডেন।