উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর আসনের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী গোলাম রাব্বানী কোভিড আক্রান্ত হওয়ার পরে তার অনুগামীদের থেকে এলাকায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। প্রাক্তন মন্ত্রীর খাস অনুগামীদের অবিলম্বে আইসোলেসনে পাঠানোর দাবি তুলে ইলেকশন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে জেলা বিজেপি। শাসকদলের এই দায়িত্বজ্ঞ্যানহীনতার ব্যাপারে বিজেপির পক্ষ থেকে জেলাজুড়ে প্রচারও শুরু করা হয়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আতংকের কোনও কারণ নেই।

আরও পড়ুন, মমতার বিরুদ্ধে FIR, 'কেন্দ্রীয় বাহিনী ঘেরাও' মন্তব্য়ের জেরে অভিযোগ দায়ের কোচবিহারে

 

 

উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর আসনের তৃণমূল কংগ্রেসের  প্রার্থী তথা প্রাক্তন মন্ত্রী গোলাম রব্বানী ৩ দিন আগে কোভিড আক্রান্ত হন।বৃহস্পতিবার দলের পক্ষ থেকে তার কোভিড আক্রান্ত হওয়ার কথা জানানো হয়েছে। রিপোর্ট পজিটিভ হওয়ার পরেই গোলাম রব্বানী ' হোম আইসোলেসনে ' চলে গিয়েছেন।এদিন বিজেপির পক্ষ থেকে এই ব্যাপারেই অন্য অভিযোগ তোলা হয়েছে। বিজেপির জেলা সভাপতি বাসুদেব সরকার জানিয়েছেন, 'বর্তমান পরিস্থিতিতে যে কেউই কোভিড আক্রান্ত হতে পারেন।আমরা তার দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।কিন্তু সমস্যা অন্য জায়গায়। তৃনমুল কংগ্রেসের প্রার্থী গোলাম রব্বানী নিজে আইসোলেসনে গেলেও তার দেহরক্ষী, গাড়ির চালক,অন্যান্য নেতারা এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।এরা সকলেই তার প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে এসেছিল। এদের সকলেরই আইসোলেসনে থাকা উচিৎ। তা ন করে এদের প্রচারের কাজে আরও বেশি করে ব্যবহার করা হচ্ছে।এদের থেকেই এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে মারাত্মকভাবে কভিড সংক্রমণের আশংকা রয়েছে। শাসকদলের এই ধরনের দায়িত্বজ্ঞ্যানহীন কাজের আমরা নিন্দা  করার পাশাপাশি প্রার্থীর প্রত্যক্ষ সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের হোম আইসোলেসনে পাঠানোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবার জন্য ইলেকশন কমিশনের কাছে লিখিত আবেদন করা হয়েছে। '

 

আরও পড়ুন, আইকোর মামলায় নয়া মোড়, ভোটের মাঝেই এবার মদন পুত্রকে তলব করল ED 

 

 

তৃণমূল কংগ্রেসের কনভেনর অরিন্দম সরকার জানিয়েছেন, ' কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট পাওয়ার পরেই গোলাম রব্বানী হোম আইসোলেসনে আছেন। তার সাথে থাকা বাকি ব্যক্তিদের ব্যাপারে আমরা সতর্ক রয়েছি।এই ব্যাপারে বিজেপিকে আর জ্ঞ্যান দিতে হবে না।কালিয়াগঞ্জ  শহরে যোগী আদিত্যনাথ সভা করে যাওয়ার পরই কোভিড আক্রান্ত হন। কালিয়াগঞ্জ আসনের প্রার্থী  বা কোনো নেতা, কর্মী কি আইসোলেসনে আছেন। বিজেপি আগে নিজে সতর্ক হোক।'