শতাব্দীর দিল্লি যাওয়া বাতিল। উলটপূরাণ রাতারাতি।  তৃণমূলের যুবরাজ অভিষেকের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন তিনি। কিন্তু ফের খোঁচা দিলেন সৌমিত্র খাঁ। শেষ অবধি বিজপিতেই আসবেন শতাব্দী রায়, বলেন বিজেপির সাংসদ আত্মবিশ্বাসী সৌমিত্র খাঁ। 


এই ছিন্নমস্তার মন্দিরে দাড়িয়ে বলেছিলাম, 'শুভেন্দু তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন। তখন হেসেছিলেন তৃণমূল কর্মীরা। কিন্তু পরে তাই সত্যি হয়েছে্। এবার বলছি দিদির অভিনয়ে কিছুদিনের জন্য দাড়িয়েছেন শতাব্দী রায়। কিন্তু শেষ অবধি উনি বিজেপিতেই আসবেন। লিস্ট রেডি। শতাব্দী রায়, প্রসুণ বন্দ্য়োপাধ্যায়, রাজীব বন্দ্য়োপাধ্যায়-এরা প্রত্য়েকেই বিজেপিতে আসবেন।' আত্মবিশ্বাসের সহিত জোরে জোরে বলেন বিজেপির সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

প্রসঙ্গত, 'ভোটারদের কাছে আসতে পারছেন না, দলীয় কর্মসূচি তাঁকে জানানো হচ্ছে না', এই অভিযোগ এনেছেন  শতাব্দী রায়। এবং তিনি জানান যে শনিবার তিনি দিল্লি যাবেন, অমিত শাহ-র সঙ্গে দেখা করতে পারেন। এরপরেই বীরভূমের সাংসদ শতাব্দী রায়ের সোশ্য়াল মিডিয়া পোস্ট ঘিরেই বুক ধুকপুক হয় ঘাসফুল শিবিরে।  তড়িঘড়ি করে তার বাড়ি যান কুণাল ঘোষ। শতাব্দীর সঙ্গে বৈঠক করেন অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়। এরপরেই চাকা ঘোরে। শতাব্দী রায় ২৪ ঘন্টার মধ্যেই জানান, দিল্লি যাওয়া বাতিল, অভিষেকের সঙ্গে কথা বলে তিনি সন্তুষ্ট। তৃণমূলের যুবরাজের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন তিনি। এমনই সময় শতাব্দীর ভবিষ্যতবাণী শোনালেন সৌমিত্র খাঁ।