২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচন (West Bengal Assembly Elections 2021) ঘিরে সাজো সাজো রব। ভোটের প্রস্তুতি দেখতে রাজ্যে এসেছেন নির্বাচন কমিশনের  (Election Commission) ফুল বেঞ্চ। বৃহস্পতিবার বাংলার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি, জেলা শাসক এবং পুলিশের সুপারের সঙ্গে বৈঠক করবে কমিশনের ফুল বেঞ্চ।

উল্লেখ্য, বুধবার সন্ধেয় কলকাতা বিমানবন্দরে পৌছন (Chief Election Commissioner) জাতীয় নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা (Sunil Arora) সহ ফুল বেঞ্চের ৭ সদস্য। বুধবার দুপুরেই দ্বিতীয় দফায় ভোট প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে চলে এসেছিলেন উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন (Sudip Jain)। নির্ঘন্ট ঘোষণা না হলেও এখন থেকেই রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে অভিযোগ তুলেছেন বিরোধীরা। 

 'একুশের নির্বাচনে অনৈতিক সুবিধা পাওয়ার জন্য পুরভোট করাচ্ছে না তৃণমূল', অভিযোগ জানিয়ে (Election Commission) কমিশনকে চিঠি পাঠিয়েছেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী।  তিনি চিঠিতে লিখেছেন, পশ্চিমবঙ্গের অনেক পুরসভায় নির্বাচিত কাউন্সিলরদের মেয়াদ ফুরিয়ে গেলেও সেখানে নির্বাচন না করিয়ে প্রশাসক বসিয়েছে তৃণমূল। নিজেদের রাজনৈতিক অভিসন্ধির পূরণের জন্যই সাংবিধানিক রীতিনীতিকে লঙ্ঘন করেছে তৃণমূল (Trinamool Congress)।'


গত বৃহস্পতিবার জেলাশাসক, পুলিশ সুপার এবং পুলিশ কমিশনারদের সঙ্গে ম্যারাথন বৈঠক করেন উপ নির্বাচন কমিশনার (Deputy Election Commissioner)। এরপর কমিশনের তরফে নির্দেশিকা জারি করে জানানো হয়, এবার থেকে প্রতি শুক্রবার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে দিল্লিতে রিপোর্ট পাঠাতে হবে জেলাশাসক এবং পুলিশ সুপারদের। কমিশন সূত্রে খবর, ইতিমধ্য়েই বাংলার ভোট প্রস্তুতি নিয়ে ফুলবেঞ্চের কাছে রিপোর্ট জমা দিয়েছে উপ নির্বাচন কমিশনার সুদীপ জৈন। উল্লেখ্য, শুক্রবার মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব, ইলেক্টোরিয়াল অফিসার, নোডাল অফিসার সহ প্রশাসন নির্বাচন প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করবেন ফুলবেঞ্চের সদস্যরা।