রাজ্যের ৫ জেলার ৩০ আসনে শুরু হয়েছে প্রথম দফার ভোটগ্রহণ। সকাল থেকে বিভিন্ন জায়গা থেকে উঠে আসছে অশান্তির খবর। এবার শালবনীতে আক্রান্ত হলেন সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত সিপিএম প্রার্থী সুশান্ত ঘোষ। শালবনীর ভেলাইয়া গ্রামের ঘটনা। তাকে ঘিরে বিক্ষোভ, জুতো দেখানো থেকে ধাক্কাও মারা হয়। যেই ঘটনা ঘিরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। সুশান্ত ঘোষের গাড়ি ঘিরেও বিক্ষোভ দেখানো হয়। ভাঙচুর করা হয় সংবাদ মাধ্যমের গাড়িও। পরে প্রার্থীর নিরাপত্তা রক্ষীরা তাকে ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে যায়। পরে এলকায় ধরপাকড় চালায় পুলিস। 

"

ভোট শুরুর আগে সকাল থেকেই শালবনীতে উত্তেজনা ছড়ায়। শালবনি বিধানসভার গড়বেতা ৩ নম্বর ব্লকের ২০টি বুথে সংযুক্ত মোর্চার এজেন্টদের বসতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন সুশান্ত ঘোষ। তাঁদের এজেন্টদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বাম প্রার্থী। এজেন্ট বসানোকে কেন্দ্র করে শালবনির শুইমাদহ প্রাথমিক স্কুলে তৃণমূল এজেন্টদের সঙ্গে বচসাও বাধে তাঁর। এজেন্টদের বসতে না দিলে তিনি দাঁড়িয়ে থেকে ভোট করাবো বলেও জানান সুশান্ত ঘোষ। তারপর ভেলাইয়া গ্রামে আক্রান্ত হলেন সিপিএম প্রার্থী। ঘটনায় সমস্ত অভিযোগ শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে।

"

এই বিষয়ে সুশান্ত ঘোষ জানিয়েছেন,এভাবে ক্ষমতায় থাকা যায় না, এটা এবারের ভোটের পরই বুঝতে পারবে তৃণমূল। সুশান্ত ঘোষ আক্রান্ত হওয়ার পর এলাকায় পুলিসি তৎপরতা বাড়ে। এলাকায় নামে কেন্দ্রীয় বাহিনী। বেশ কিছু ধরপাকড় ও তল্লাশি চালানো হয়। ঘটনায় ইতিমধ্যেই রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন। যদিও ভোটের দিন সকালেই যদি বিরোধী দলের ভোটার নয়, খোদ প্রার্থীকে এভাবে এভাবে আক্রান্ত হতে হয়, তাহলে নির্বাচন প্রক্রিয়া কতটা সুষ্ঠুভাবে হবে তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। ঘটনার নিন্দায় সরব হয়েছে সব মহল।